বিশ্বের সবথেকে বড় শপিং ইভেন্টঃ ব্ল্যাক ফ্রাইডে 4 109

Black-Friday-Shopping-lines 1

ব্ল্যাক ফ্রাইডে কি?

নভেম্বার মাসের শেষ শুক্রবার বিশ্বের অনেকে দেশে ব্ল্যাক ফ্রাইডে হিসেবে উদযাপিত হয়ে থাকে। এই দিনটি অনেক দেশেই অফিসিয়াল ও আনফিসিয়াল ভাবে শপিং মৌসুমের শুরু হিসেবে বিখ্যাত। প্রায় সব দোকান ও রিটেইল শপ গুলো অনেক বড় অংকের ডিস্কাউন্ট এই দিনে দিয়ে থাকে। সময়ের সাথে সাথে ব্ল্যাক ফ্রাইডের প্রচলন অফলাইন থেকে অনলাইনেও শুরু হয়েছে। বিক্রয় বৃদ্ধির লক্ষে এখন প্রায় সব অনলাইন শপিং স্টোর গুলো রিটেইল শপ গুলোর মতোই ব্ল্যাক ফ্রাইডেতে বড় অংকের সেলস ডিস্কাউন্টের ব্যবস্থা করে থাকে।

কোথা থেকে এর শুরু?

১৯৫১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে থ্যাংকস গিভিং ডে- এরপর এবং বড় দিনের আগের শুক্রবারটি প্রথমবারের মতো লক্ষ লক্ষ মানুষ তাদের অফিস ও স্কুল থেকে ছুটি নেয় পুরোপুরি উৎসবের আমেজে দোকানে ভীর জমায় শপিং করার জন্য।এরপর থেকেইশপিং পাগল মানুষের কাছে এই দিনটি ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামে পরিচিত।তাই প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী শপিং প্রেমিকরা এই দিনটির জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকে।

ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামকরণের ইতিহাস

ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামকরণের পিছনে অনেকগুলো গল্প আছে। অনেকের ধারণা ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামটি এসেছে নভেম্বের মাসের শপিং সিজনের শুরুতে রাস্তাতে যে অতিরিক্ত ট্রাফিক জ্যামের সৃষ্টি হয় তার থেকে।আবার অনেকের মতে, ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামটির উৎপত্তি বছর শেষের দিকে লোকসানের লাল কালির পরিবর্তে কালো কালি দিয়ে হিসাবের খাতায় লাভের অংক লেখার প্রচলন থেকে।

কি হয় ব্ল্যাক ফ্রাইডে তে?

ব্ল্যাক ফ্রাইডেতে প্রায় সব অনলাইন ও অফলাইন ষ্টোরে থাকে থাকে বড় অংকের ডিস্কাউন্ট। সবারই চেষ্টা থাকে সবচেয়ে সেরা অফারটি দিয়ে যতসম্ভব ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার। ক্রেতারাও এই দিনটিতে ব্যস্ত থাকে দিনভর শপিং-এ এবং সবচেয়ে সেরা ডিলের খোঁজে।

 

বলতে গেলে ব্ল্যাক ফ্রাইডে এমন একটি দিন যেখানে বিক্রেতারা সেরা ডিলটি দেয়ার চেষ্টা করে আর শপিং পাগল ক্রেতারা সেরা ডিলটি খুজে পেতে ব্যস্ত থাকে।

Previous ArticleNext Article

4 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

css.php