back_to_office-daraz.com.bd

ছুটি শেষ? কর্মক্ষেত্রে পুনরায় মানিয়ে নিবেন যেভাবে

লম্বা ছুটি শেষ করে আবারও কাজে ফিরে আসার অপ্রতিরোধ্য অস্বস্তি অধিকাংশ কর্মজীবি মানুষকেই কম-বেশি ভুগিয়ে থাকে। বিভিন্ন উৎসব ও পালা-পার্বনের খুশির আমেজ শেষ করে চিরচেনা কর্ম পরিবেশে আবারও নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করতে পারাটা অনেকের জন্যই বেশ কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। আর দীর্ঘ বন্ধে অপরিকল্পিত খাওয়া-ঘুম এর অনিচ্ছাকৃত অভ্যাস থেকে হুট করে বের হয়ে আসাটা তো রীতিমত কঠিনই বলা চলে। কিন্তু বাস্তবতা এই যে, আরামের ছুটি শেষ করে ঠিক আগের মতই দৈনন্দিন কাজের তীব্র চাপের সাথে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে হয়। আর তাই বেশ কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করে খুব সহজেই আবার পূর্ণ মনযোগ ও পুলকিত মেজাজে কাজে ফেরা সম্ভব বলে মনে করা হয়।

ছুটি শেষে অফিসে ফেরার পর যেসব বিষয় মাথায় না রাখলেই নয় –

প্রথমেই সচেতন হওয়া দরকার নিয়মতান্ত্রিক খাদ্যাভ্যাসে

প্রাত্যহিক রুটিনমাফিক একটানা কাজ থেকে হালকা অবসরেই আমাদের উপর নানা অনিয়ম ভর করে বসে অনায়াসে। ইচ্ছামত সময়ে খাওয়া, ঘুম অথবা ঘুরে বেড়ানো আপনাকে কিছুটা হলেও অলস করে তুলতে পারে। কিন্তু কাজের সময়ে এসব ইচ্ছাকে প্রচ্ছয় দিলে কাজের ফলাফলেও বেশ বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে। তাই সবার আগে লাগাম টেনে ধরা দরকার সমস্ত অনিয়মের, নাহলে কাজে মন বসান হিসেবের বাইরে চলে যেতে পারে। এজন্য ঘুম ও খাবারের তালিকায় চাহিদামত পরিবর্তন আনা যেতে পারে, তাহলে অফিসে প্রথম কর্ম দিবস আপনার মনের মতই হবে।

সহকর্মীদের সাথে সহাস্য মুখে ভাবের আদান-প্রদান করা

লম্বা ছুটি কাটানোর পরে অফিসে ফিরেই কলিগদের সঙ্গে কুশল বিনিময় খুব অল্পতেই আপনার মন ভাল করে দিতে পারে। এতে করে পারস্পরিক সম্মান, ভালবাসা ও সৌহার্দ্যবোধ যেমন বাড়বে, তেমনি একে অপরের প্রতি মানসিক বন্ধনও অক্ষুণ্ণ থাকবে। সামান্য কিন্তু দারুণ এই অভিজ্ঞতাটিই কাজে বাড়তি অনুপ্রেরণা যোগাতে অনেকটা ভাল ভাবেই সক্ষম হবে।

দরকারি কাজগুলোর নির্দিষ্ট তালিকা তৈরী করা

দীর্ঘ বন্ধের পর অফিসে ফিরেই ডেস্কে জমে থাকা কিছু কাজ দেখে কপালে চিন্তার ভাঁজ দেখা যেতে পারে নিতান্তপক্ষেই। সাথে কিছু নতুন কাজ অনতিবিলম্বে হাজির হলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। এক্ষেত্রে বিমর্ষ না হয়ে আগেভাগেই পুরনো ও নতুন কাজের একটি নির্দিষ্ট তালিকা তৈরি করতে পারলে অনাকাঙ্খিত কষ্টের পরিমাণ অনেকাংশেই কমিয়ে আনা সম্ভব। তাতে করে আগের জমানো কাজের শেষ থেকে আবারও নতুন শুরু করতে পারাটা আপনার জন্য অনেক সহজ হবে।

সময়মত ইমেইল ও ম্যাসেজ চেক করা

ইমেইল ও ম্যাসেজ সময়মত মোবাইল অথবা ল্যাপটপ থেকে চেক করতে পারলে জমে থাকা কাজগুলোর একটা পূর্ণাঙ্গ ধারণা পাওয়া যাবে, ফলে ছোট কিংবা বড় কোন কাজই আর হাতছাড়া হওয়ার সুযোগ থাকবে না।

প্রত্যেকটি কাজের সময়সীমায় যথাযথ নজর রাখা

একটানা ছুটির আয়েশি জীবন থেকে ঝটপট বের হয়ে আসাটাও এতটা সহজ নয়, হালকা অলসতায় গুরুত্বপূর্ণ কোন কাজের ডেডলাইন মিস করে ফেলাটা তাই অস্বাভাবিক কোন বিষয় নয়। তবে গুরুত্বের বিচারে কাজ বাছাই করে এগিয়ে রাখতে পারলে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যেই কাজ সেরে ফেলা কঠিন কিছু নয়। তবে বাড়তি চাপ এড়িয়ে কাজ শুরু করতে পারলেই ভাল ফলাফল উপভোগ্য হবে অনেকাংশে।

বড় ছুটির পর কর্মক্ষেত্রে এসে প্রথম দিন থেকেই এসব নিয়ম মানতে পারলে কাজ তখন চাপ মনে না হয়ে উপভোগের বিষয় হবে, যেকোন ঝামেলা সঠিক ভাবে সামাল দেওয়াটাও সহজসাধ্য ব্যাপার হবে। তবে এ বিষয়ে আপনার কোন বাড়তি মতামত থাকলে সেটা জানিয়ে দিতে পারেন কমেন্টবক্সে।

css.php