অনলাইনে ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায় বিক্রয় বাড়ানোর ৮ টি অসাধারণ কৌশল 0 280

বাংলাদেশের বাজার ব্যবস্থায় ইলেকট্রনিক্স পণ্যের ব্যবসা রমরমা থাকে প্রায় সারা বছর জুড়ে যেহেতু বিভিন্ন ইলেকট্রিক ডিভাইস ও গ্যাজেটের আকাশচুম্বী চাহিদা লক্ষ করা যায় বর্তমানে!

বিশেষ করে গ্রীষ্মে কিছু কিছু ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বিক্রয় বেড়ে যায় বহু গুণে!

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে দেশের ই-কমার্স খাতে এখন বৈপ্লবিক পরিবর্তন লক্ষণীয়। বর্তমানে কেনাকাটা অথবা বিক্রয় সবকিছুর জন্যই দেশের মানুষের কাছে অনলাইনে ব্যবসা একটি লাভজনক ও সময়োপযোগী ধারণা!

আপনি যদি ক্ষুদ্র থেকে মাঝারি আকারের ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায় অধিকতর মুনাফা লাভ করতে চান, তাহলে অনলাইন ব্যবসায় আপনার আজই এগিয়ে আসা দরকার। একটি অনলাইন শপের মাধ্যমেই সবচেয়ে বেশি ট্র্যাফিক ও ক্রেতার সন্ধান পেয়ে যাবেন খুব সহজেই।

অনলাইনে ইলেকট্রনিক্স ব্যবসার প্রসারে কিছু সহজ কৌশল দেখে নিন একনজরে

আপনি যদি অনলাইন ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায় সর্বাধিক লাভের ভাগিদার হতে চান, তাহলে এই পরামর্শ সমূহ অনুসরণ করে আপনিও হতে পারবেন সফল অনলাইন ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায়ী!

১। আপনার অনলাইন শপের একটি পর্যাপ্ত ও পরিপূর্ণ পরিচিতি থাকা দরকার

একটি অনলাইন ইলেকট্রনিক্স ও গ্যাজেট শপের জন্য সর্বপ্রথমে আপনার দরকার হবে একটি পরিপূর্ণ পরিচিতি। আপনাকে অবশ্যই পণ্যের বিস্তারিত বিবরণ এবং একই সাথে ইমেইল ও যোগাযোগের ঠিকানা, বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সমূহ (যদি থাকে) সর্বাধিক গুরুত্বের সাথে প্রস্তুত রাখতে হবে। এভাবে আপনি প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সংখ্যক ক্রেতার কাছে পৌছে যেতে সক্ষম হবেন।

২। পণ্যের যথাযথ তালিকা বানিয়ে ফেলুন!

যখন অনলাইনে ব্যবসার প্রসঙ্গ আসে, খেয়াল রাখতে হবে পণ্য সামগ্রী সঠিকভাবে তালিকাবদ্ধ আছে কি না। দিনশেষে ক্রেতারাই আপনার অনলাইন শপের প্রত্যেকটি পণ্যের প্রত্যক্ষদর্শী।

তাছাড়া, অনলাইন শপে আপনার তালিকাবদ্ধ পণ্যের পূর্ণ বিবরণী এবং সেগুলোর হালনাগাত অনেক গুরুত্ব বহন করে।

৩। প্রোফেশনাল ফটোগ্রাফির মাধ্যমে পণ্যের ছবির বিশ্বাসযোগ্যতা বজায় রাখুন

অনলাইন শপিং এর ক্ষেত্রে ক্রেতাকে পণ্য অর্ডারে আকৃষ্ট করতে পণ্যের ছবি সহ অন্যান্য বিষয়ে বিশ্বাসযোগ্যতা ও অকৃত্রিমতা অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। কোন প্রকার নকল পণ্য গ্রহণ না করার ব্যাপারেও সর্বোচ্চ সচেতন থাকতে হবে।

৪। পণ্যের ব্র্যান্ড ফিচার, ওয়ারেন্টি ও অফার উল্লেখ করুন 

ক্রেতাকে পণ্য কেনায় উদ্বুদ্ধ করতে পণ্যের ফিচার, ওয়ারেন্টি ও অফার বড় ভূমিকা পালন করে। কোন একটি পণ্যের ব্যাপারে খুবই জানাশোনা একজন ক্রেতা যদি একটি নির্দিষ্ট পণ্যের খোঁজ করে থাকে, তাহলে আপনার পর্যাপ্ত পণ্য বিবরণী, সুবিধা ও ব্র্যান্ড ওয়ারেন্টি ইত্যাদি থাকার সুবাদে পণ্যটি বিক্রয়ের সুযোগ বহু গুণে বেড়ে যায়।

৫। যাচাইকৃত সন্তুষ্ট ক্রেতাকে ভালো রেটিং প্রদানে উৎসাহিত করুন

বাংলাদেশে এখনও কিছু ক্রেতা অনলাইনে ইলেকট্রনিক্স পণ্য ক্রয়ে দ্বিধাদ্বন্দে ভুগে থাকেন। তবে বর্তমানে অধিকাংশ ক্রেতাই অন্যান্য ক্রেতার মতামত ও ক্রয় অভিজ্ঞতার উপরে নির্ভর করে থাকেন।

এক্ষেত্রে ভবিষ্যতে আরও অধিক ক্রেতার বিশ্বাস অর্জনে বর্তমানে সকল ক্রেতাকেই কিছু ভালো রেটিং ও রিভিউ এর ব্যাপারে উৎসাহিত করতে পারেন।

৬। ক্রেতার সাথে সক্রিয়ভাবে যুক্ত থাকুন

আপনার যখন অনলাইনে একটা শপ থাকবে, তখন ক্রেতার বিভিন্ন রকম প্রশ্নের উত্তর প্রদানে সার্বক্ষনিক প্রস্তুত থাকতে হবে। অনেক ক্ষেত্রে ঠিক একই রকম কিছু প্রশ্নের উত্তর বারবার করা লাগতে পারে, যা ইতোমধ্যে করেকবার করেছেন। তাছাড়া আপনার অনলাইন শপকে ক্রেতার কাছে আরও বেশি যৌক্তিকভাবে উপস্থাপন করতে ক্রেতার সকল প্রকার প্রশ্নের তাৎক্ষনিক উত্তর প্রদান ও সে অনুসারে প্রতিক্রিয়া জানানো একান্ত দরকার।

৭। বিভিন্ন পেমেন্ট অপশনের ব্যবস্থা রাখুন

ক্রেতাকে আপনার অনলাইন শপে পণ্য অর্ডারে আকৃষ্ট করার আরও একটি বড় কৌশল হল একাধিক পেমেন্ট মেথডের সুবিধা রাখা। বিভিন্ন পেমেন্ট মাধ্যম যেমন ক্যাশ অন ডেলিভারি, ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড পেমেন্ট, ইন্সটলমেন্ট সুবিধা এবং বিকাশ ও অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা ক্রেতার পণ্য ক্রয়কে আরও সহজ করে তুলবে। এছাড়া সুদ বিহীন ইএমআই প্ল্যান ও কার্ড ডিসকাউন্ট অফার হতে পারে ক্রেতার জন্য অনেক বড় আকর্ষণ।

৮। স্পন্সর অ্যাড এর মাধ্যমে আপনার পণ্যের প্রচার অব্যাহত রাখুন

একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী হওয়া সত্বেও অনলাইনে যদি আপনার নতুন শপ থেকে থাকে, তাহলে কালেকশনে থাকা পণ্যের জন্য সক্রিয় ক্রেতা খুঁজে পেতে পণ্যের প্রচার আপনাকে দারুনভাবে সহায়তা করবে।

স্পন্সর অ্যাডের মাধ্যমে আপনার হোমপেজে থাকা পণ্যের ডিসপ্লে কাঙ্খিত গ্রাহকের কাছে প্রদর্শন করা সম্ভব হবে। এভাবে আপনার পণ্যের প্রচার আরও বহু গুণে বাড়বে, আরও বেশি ক্রেতা পণ্য অর্ডারে উৎসাহিত হবে।

দারাজ সেলার প্রোগ্রামের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করুন এবং অনলাইনে আপনার ইলেকট্রনিক্স ব্যবসার প্রসার ঘটান!

দারাজ বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন মার্কেটপ্লেস, যেখানে পাচ্ছেন অনলাইনে পণ্য বিক্রয়ের ঝামেলা বিহীন অভিজ্ঞতা! দারাজের মাধ্যমে খুব সহজেই লক্ষাধিক ক্রেতার কাছে পৌছে যাওয়া সম্ভব। উল্লেখ্য, বর্তমানে দারাজের রয়েছে ১০০ টির বেশি ক্যাটাগোরির আওতাভুক্ত প্রায় ২০ লক্ষাধিক পণ্য!

কিভাবে দারাজে বিক্রয় করবেন?

দারাজে ইলেকট্রনিক্স পণ্য বিক্রয় করা এখন সবচেয়ে সোজা!

দারাজে সেলার হওয়ার জন্য দারাজ সেলার সাইন আপ পেজে ভিজিট করুন এবং উল্লিখিত পদক্ষেপ সমূহ সঠিকভাবে অনুসরণ করুন। ঠিক এভাবেই আপনি দারাজে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের সেলার হতে পারবেন!

দারাজে সেলার হওয়ার সুবিধাঃ

  • সারা বাংলাদেশ জুড়ে লক্ষাধিক ক্রেতার সঙ্গে যুক্ত হতে পারবেন।
  • নতুন সেলারদের জন্য দারাজে আছে এক্সপ্রেস সাইন-আপ সুবিধা, যার মাধ্যমে মাত্র ২ দিনের কম সময়ে দারাজে বিক্রয় শুরু করতে পারবেন!
  • প্রত্যেক সেলারকে ফ্রি অ্যানালিটিকস টুল ব্যবহারের সুবিধা দেওয়া হয়, যা তাদের ডিজিটাল ভেনচারগুলোকে অপটিমাইজ করতে সহায়তা করে।
  • নতুন সেলারদের জন্য কোন লিস্টিং ফি নেই, পণ্য বিক্রয়ের পরও পরিশোধ করা সম্ভব!
  • আপনার অর্ডারের জন্য সবচেয়ে দ্রুত ও বিশ্বস্ত শিপিং সুবিধা পাচ্ছ।
  • আপনি সময়মত নিরাপদ পেমেন্টের বিষয়ে আশ্বস্ত থাকতে পারেন।
  • পণ্য নিষ্পত্তি সহ অন্যান্য কাজের সার্বিক সহযোগিতায় আপনাকে প্রোফেশনাল সার্ভিস প্রদান করা হবে।

যদি অনলাইনে মোবাইলের বিক্রয় বাড়াতে চান, তাহলে এই ব্লগটি পড়ুন ঃ 

কিভাবে অনলাইনে মোবাইল ব্যবসায় লাভবান হতে পারবেন?

আরও থাকছে,

কিভাবে দারাজের সেলার হবেন? দারাজে সেলার হওয়ার সুবিধা কি?

Previous ArticleNext Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

css.php