করোনাকালে স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে ভরসা অনলাইন কেনাকাটা (২০২১) 0 559

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও করোনা অতিমারির দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে। টানা আট সপ্তাহ সংক্রমণের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকার পর আবার হু হু করে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। ইতিমধ্যে দেশে জারি করা হয়েছে লকডাউন। বন্ধ অফিস-আদালত, মার্কেট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রায় এক বছর পর ফের শুরু মানুষের ঘরবন্দী জীবনযাপন।

বিগত এক বছরে মানুষের জীবনযাত্রা সম্পূর্ণভাবে বদলে দিয়েছে করোনার বৈশ্বিক মহামারি। বাজারে যাওয়ার মতো সাধারণ কাজটি করতেও মানুষকে এখন ভাবতে হচ্ছে। সংক্রমণের ভয়ে মানুষ বেশিরভাগ সময় নিজেদের ঘরে অবস্থান করছে। তবে, করোনা হানা দেয়ার পর থেকে ঘরবন্দি মানুষের চলাফেরা বেড়েছে অনলাইনে। আগে যেখানে মানুষ কালেভদ্রে অনলাইনে বাজার করতো, এখন স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে মানুষ দৈনন্দিন বাজারসদাই হতে শুরু করে সবরকম কেনাকাটার জন্য ভরসা করছে অনলাইন প্লাটফর্মগুলোর উপর। দেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় ইতোমধ্যে প্রস্তুত হয়েছে এবং মানুষ যাতে সহজে ও নিশ্চিন্তে প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী কিনতে পারে সেই লক্ষ্যে গ্রহণ করেছে বিভিন্ন পদক্ষেপ।

তবে এখানে প্রশ্ন উঠতে পারে যে, এ সময় অনলাইন কেনাকাটা কি সম্পূর্ণ নিরাপদ? স্বস্তির বিষয় হচ্ছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনলাইন কেনাকাটা একইসাথে সহজ এবং নিরাপদ। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস থেকে শুরু করে অর্ডারকৃত যেকোন পণ্য স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে দারাজ। দারাজে পণ্য অর্ডার করলে স্বল্প সময়ের মধ্যে মাস্ক এবং গ্লাভস পরিহিত দারাজ ডেলিভারি এজেন্ট হাজির হয়ে যাবে পণ্য হাতে। প্রতিষ্ঠানের নির্দেশ অনুযায়ী গ্রাহকের বাড়ির দরজায় জীবাণুমুক্ত করা হবে ডেলিভারি প্যাকেজটি। ফলে, প্যাকেট থেকে ভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনা অনেকাংশেই দূর হবে। এছাড়া, প্যাকেট ছাড়াও টাকার মাধ্যমে ঘরে ঢুকে যেতে পারে প্রাণঘাতী ভাইরাসটি। গ্রাহকদের এমন দুশ্চিন্তা দূর করতে দারাজের রয়েছে স্পর্শহীন ডেলিভারি এবং মূল্য পরিশোধের ব্যবস্থা। অর্থাৎ, গ্রাহকরা চাইলে অনলাইনে মূল্য পরিশোধ করতে পারবে।

অনলাইনে অর্ডারকৃত পণ্য যারা ডেলিভারি দিয়ে থাকেন, তারা সহজে সংক্রমিত হতে পারেন বলে প্রথমে তাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। কর্মীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে প্রয়োজনীয় সকল প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে দারাজ। প্রতিটি দারাজ ডেক্সে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে মাস্ক, গ্লাভস এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার। রাইডাররা ডেলিভারি দিতে বের হলে তারা ঠিকমত মাস্ক ও গ্লাভস পড়ছে কিনা এবং স্যানিটাইজার সাথে আছে কিনা সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখছে দারাজ। মাস্ক না পড়লে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না দারাজের ওয়্যারহাউজ, হাব ও অফিসের ভেতর। প্রবেশের দরজায় স্থাপন করা হয়েছে ডিসইনফেকশন বুথ, আর প্রবেশের পূর্বে মাপা হচ্ছে শরীরের তাপমাত্রা।

এছাড়া, দারাজের সকল ওয়্যারহাউজ, হাব ও অফিসে কঠোরভাবে মানা হচ্ছে ছয় ফিট শারীরিক দূরত্ব। দারাজের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে বিভিন্ন শিফটে ৫০ শতাংশ জনবল নিয়ে। দুই ঘন্টা পর পর সম্পূর্ণ অফিস পরিষ্কার করা হচ্ছে যাতে করোনা ভাইরাস মেঝে ও আসবাবে থাকতে না পারে এবং সবাইকে ঘন ঘন হাত ধুতে উৎসাহিত করা হচ্ছে। হাত পরিষ্কারের সুবিদার্থে প্রতিটি ফ্লোরের প্রবেশ গেইটে রাখা হয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ডিসপেন্সার। প্রত্যেক দলের প্রধান দলের সদস্যদের স্বাস্থ্যাবস্থা প্রতিনিয়ত পর্যবেক্ষণ করছেন এবং কারও মধ্যে কোভিডের সামান্যতম উপসর্গ দেখা দিলেও দ্রুততার সাথে পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি কর্মীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বাড়ি বসে কাজ করার ব্যবস্থাও করেছে।

ঘরে থাকুন, নিরাপদে থাকুন, ডেলিভারি করছে দারাজ- এই মন্ত্রে সঙ্কটকালীন সময় সারা দেশে পণ্য ডেলিভারি করছে দারাজ। অনলাইন কেনাকাটায় স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করতে দারাজের উদ্যোগসমূহ যথেষ্ট সময় উপযোগী এবং কার্যকর। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়মাবলী অনুসারে স্বাস্থ্যঝুঁকি হ্রাসে যা যা করা প্রয়োজন সব নিয়ম মেনে দক্ষতার সাথে সকল কাজ পরিচালনা করছে দারাজ। তাই, আপনার প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি নিশ্চিন্তে অর্ডার করতে বেছে নিতে পারেন দারাজ প্ল্যাটফর্মকে।

Previous ArticleNext Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Daraz BD Announces Bangladesh Olympics Team Partnership! 1 85

The 2020 Summer Olympics, officially known as the Games of the XXXII Olympiad, will be held from July 23 to August 09

Country’s most popular online marketplace, Daraz Bangladesh (https://www.daraz.com.bd/) is all set to add another feather to their cap by delivering dreams as a partner of the Bangladesh Olympics Team (archery team) who will participate in the imminent Tokyo Olympics 2021.

The 2020 Summer Olympics, officially known as the Games of the XXXII Olympiad, will be held from July 23 to August 09, 2021, announced by Olympic press release.

Daraz Bangladesh will have the privilege to pull off the partnership of the Bangladesh archery team for this grand event.

Apart from being an e-commerce site, Daraz feels the urge to live up to the expectations of its customers through collaborations that align with their values. Sports is something that attracts modern-day consumers. That’s why Daraz Bangladesh has found it appropriate to partnership opportunity for the national Olympics team of Bangladesh.

Syed Mostahidal Hoq, Managing Director of Daraz Bangladesh, said on this occasion, “This is a proud moment for Daraz Bangladesh, as we are partnering with the Olympics archery team of Bangladesh. Just like the athletes are motivated to deliver the best and score success, we at Daraz also believe in delivering dreams to our customers through adopting agile, authentic, and result-driven values.”

Daraz’s Founder and CEO, Bjarke Mikkelsen, said “the company’s addition to Alibaba’s Olympic partnership is a fantastic opportunity not only for Daraz but also the people of South Asia.”

It is mentionable that Daraz, functioning in Pakistan, Sri Lanka, Nepal and Myanmar has also tagged along as partner of the Athletics & Shooting, Equestrian & Gymnastics, and Badminton teams of the countries’ Olympic teams.

Daraz Becomes the Proud Sponsor of Bangladesh National Cricket Team! 0 549

This sponsorship is effective from 07 April 2021 to 30 November 2023.

The country’s leading e-commerce platform Daraz has become the new sponsor of the Bangladesh National Cricket Team.

Daraz has been awarded the rights under which its logo will appear on the kits of the Bangladesh National Team (men’s and women’s), the Bangladesh A-Team and Bangladesh Under 19 Team.

Meanwhile, HungryNaki, a sister concern of Daraz will be the Team Kits Partner.

BCB CEO Nizam Uddin Chowdhury welcomed Daraz to Bangladesh cricket; “Within a very short period, Daraz has become one of the leading e-commerce sites in Bangladesh and arguably the most popular. The way Daraz has provided customer service at the doorsteps of millions of people, especially during the challenging period of the Covid-19 pandemic, has been admirable.”

“The BCB is delighted to form a partnership with an organization of international repute and one that has a progressive and innovative outlook. I thank Daraz for coming forward and associating its brand with Bangladesh Cricket. I am sure this will be a strong and durable relationship as we work towards the common goal of pursuing successes for Bangladesh cricket.”

Daraz’s Managing Director Syed Mostahidal Hoq said, “This is an auspicious moment for us because it always gives you immense pleasure to be able to do something for the country. By sponsoring our National Cricket Team, we feel that we have become a part of the passion and glory associated with the game in Bangladesh and we look forward to celebrating many achievements in the years to come.”

Daraz will officially begin the journey with BCB in Bangladesh’s upcoming two-match Test series against Sri Lanka, starting on April 21 in Kandy.

Safer Online Shopping Measures at a Time of Social Distancing 0 914

Over the past few days, the impact of the COVID-19 outbreak in Bangladesh has become apparent. The government is rushing to curb the spread of the virus and contain the economic fallout from the pandemic, businesses are struggling with the uncertainty and investors’ anxiety has wreaked havoc at the Bangladesh Stock Exchange. Families have disconnected from their daily lives to practice social distancing in keeping with the recommendations of the World Health Organisation for the pandemic.

But where do e-commerce platforms stand?

Globally, countries have witnessed reduced visits to offline retail stores with consumers only venturing out if absolutely necessary. In countries like France, Italy or Spain, where strict quarantine has been enforced, locals are not able to leave their houses without official certificates and are turning toward e-commerce to meet their basic needs. In Bangladesh, similar consumer behaviors toward online shopping have been observed for the past few days.

Daraz, the leading online marketplace in Bangladesh, is doing everything to ensure that customers have safe access to basic commodities such as flour, lentils, soaps, sanitizers, sugar, tea, surface cleaners, hand washes and baby formula. The platform is also taking measures to ensure minimal instances of price hikes and has promised to take immediate and strict actions to prevent marketplace sellers from taking unfair advantage of the situation alongside making sure all sellers are provided with support to keep their businesses running during this time of crisis.

Ensuring the health and well-being of its entire community – delivery agents, customers, sellers and users around Bangladesh – is the platform’s prime concern. All employees and delivery agents adhere to the strict protective measures recommended by the World Health Organization. Working from home has become the norm for most employees. At Daraz’ warehouses, hubs and offices, colleagues have been told to refrain from physical contact. The protocol is simple: maintain as much distance as possible from each other at all times and wash hands frequently and thoroughly. Furthermore, the temperature of all employees at the warehouse and all members of the logistics team is checked several times daily.

“It is our primary responsibility right now to ensure that our employees, delivery agents and customers remain safe. We anticipate an uptick in demand and have taken steps to ensure that we are equipped to serve the needs of our customers. At the same time, it is our social responsibility to help prevent the spread of the virus and therefore, the strictest standards of hygiene are being enforced at our facilities,” said Khondokar Tashfin Alam, COO Daraz Bangladesh.

DEX Heros – delivery agents – have been instructed to wear masks and gloves at all times. While there has been no scientific evidence that packages carry the virus according to the World Health Organization, DEX Heros have been instructed to take precautionary measures and disinfect the package at customer’s doorstep.

While the WHO has stated that there is no evidence that banknotes transmit the virus, Daraz is encouraging all customers to use digital payment options – such as bank cards and e-wallets – when shopping on the platform. With cashless transactions, Users are encouraged to make contactless reception of their orders where riders can put the parcel on the doorstep and the buyer picks it up at a distance.

As the country moves toward social distancing, e-commerce platforms have the responsibility of ensuring the safety of their customers, their logistics teams and their operations team. Strict precautions are the need of the hour to mitigate the spread of the virus.

Don’t forget to Read More About Covid 19:

Coronavirus: Causes, Symptoms and Remedies

ফুড ডেলিভারি স্টার্টআপ হাংরিনাকি অধিগ্রহণ করলো দারাজ 1 448

জনপ্রিয় ফুড ডেলিভারি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হাংরিনাকি অধিগ্রহণের মাধ্যমে নিজেদের কার্যপরিসীমা সম্প্রসারণের ধারাবাহিকতায় নতুন সূচনা করলো আলীবাবা গ্রুপের অঙ্গ সংগঠন দেশের সর্ববৃহৎ কমার্স প্ল্যাটফর্ম দারাজ আজ রাজধানীর বিআইসিসিতে দারাজ হাংরিনাকির যৌথভাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে অধিগ্রহণের ব্যাপারে জানানো হয়।   

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দারাজ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মোস্তাহিদল হক এবং হাংরিনাকি’র প্রধান নির্বাহী ও সহ-প্রতিষ্ঠাতা এডি আহমেদ সহ উভয় প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ।   

daraz acquires hungrynaki

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, হাংরিনাকি’র সকল স্থাবর এবং অস্থাবর সম্পত্তি দারাজ অধিগ্রহণ করেছে। তবে এর কারণে হাংরিনাকি’র বর্তমান ব্যবসায়িক কার্যাবলীতে কোনো প্রভাব পড়বে না, অর্থাৎ হাংরিনাকি’র সকল কর্মচারী ভবিষ্যতেও যথানিয়মে কাজ করে যাবেন। উল্লেখ্য, সরাসরি দারাজের পরিচালনায় পৃথক ও স্বতন্ত্র ফুড প্ল্যাটফর্ম হিসেবে পরিচালিত হবে হাংরিনাকি।  

অনুষ্ঠানে দারাজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ মোস্তাহিদল হক বলেন, ‘আমাদের ক্রেতাদের জন্য আমরা একটি ওয়ান স্টপ সল্যুশন হতে চাই। আর সে হিসেবেই আমরা স্বাভাবিক পদক্ষেপ হিসেবেই ফুড ডেলিভারি ব্যবসায় প্রবেশ করেছি। একটি বিশ্বস্ত কাস্টমার বেজ নিয়ে হাংরিনাকি বাংলাদেশে ফুড ডেলিভারি ব্যবসায় পথিকৃৎ। আর এ কারণেরই আমরা বিশ্বাস করি, একেবারে প্রাথমিক পর্যায় থেকে আমাদের নিজেদের ফুড ডেলিভারি ব্যবসা শুরু করার চেয়ে, হাংরিনাকি অধিগ্রহণ করা শ্রেয়। অবকাঠামো, প্রযুক্তি ও মানব সম্পদে বিনিয়োগের মাধ্যমে আমরা হাংরিনাকি’কে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে পারবো বলে আমার বিশ্বাস।’ 

Daraz Acquires Food Delivery Start-up HungryNaki

হাংরিনাকি’র প্রধান নির্বাহী এবং সহ-প্রতিষ্ঠাতা এডি আহমেদ বলেন, ‘এটা সবার জন্যই আনন্দদায়ক মুহূর্ত। এ অধিগ্রহণের মাধ্যমে বোঝা যায় আমাদের ই-কমার্স খাত একটি আশাব্যঞ্জক অবস্থানে রয়েছে। এছাড়াও দেশীয় স্টার্ট-আপ এবং উদ্যোক্তাদের জন্য এটি সুখবর বয়ে এনেছে। এমন অধিগ্রহণের দৃষ্টান্তই আমাদের বাজারে ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করবে এবং অর্থনীতিকে গতিশীল রাখবে। দারাজের সাথে মিলে আমরা হাংরিনাকিকে আরো শক্তিশালী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলবো।’

২০১৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ফুড ডেলিভারি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান হাংরিনাকি। দেশের পাঁচটি শহরে অসংখ্য রেস্টুরেন্ট, ক্লাউড কিচেন এবং হোম কিচেন নিয়ে এই প্রতিষ্ঠানটি হাজার হাজার গ্রাহককে প্রতিদিন পৌঁছে দিচ্ছে সুস্বাদু খাবার। ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, কক্সবাজার ও নারায়ণগঞ্জে পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষ এখন তাদের পছন্দ মত খাবার অর্ডার করতে হাংরিনাকি ব্যবহার করে থাকেন।

অন্যদিকে, দারাজ বর্তমানে দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষস্থানীয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস। দারাজ ক্রেতা ও বিক্রেতার সংযোগ ঘটানোর মাধ্যমে লক্ষাধিক বিক্রেতার ক্ষমতায়নে কাজ করছে। শতাধিক ক্যাটাগরির আওতায় কোটিরও বেশি পণ্য পাওয়া যায় দারাজে, যার চাহিদা পূরণে প্রতিমাসে প্রতিষ্ঠানটি দেশের আনাচে-কানাচে ২০ লাখেরও বেশি প্যাকেজ ডেলিভারি দিয়ে থাকে।

দারাজ ও হাংরিনাকি’র এই একীভূতকরণ হাংরিনাকির জন্য ব্যবসায়িক কার্যপরিচালনায় সমৃদ্ধি বয়ে আনবে বলে আশা করা যাচ্ছে। আলিবাবা গ্রুপের মালিকানাধীন দারাজ বাংলাদেশে ব্যবসায় ব্যবস্থাপনা এবং কাস্টমার সার্ভিস প্রসঙ্গে ইতোমধ্যেই যে দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে, তা নিঃসন্দেহে হাংরিনাকি’র জন্য ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে। 

লেখাটি ইংরেজিতে পড়তে চাইলে-
Daraz Acquires Food Delivery Start-up HungryNaki

css.php