buy smartphone at best price on daraz.com.bd

10 Best Smartphones Under BDT 20000 In Bangladesh (2021)

Are You Looking For Best Mobile Phones Under 20000 Taka In Bangladesh 2021?

Stop waiting! As we have compiled a list of 10 best smartphones under 20000 in Bangladesh 2021 with their price-valued specs and features. This year, all the top smartphone brands have stepped-in to compete in the consumer market. So just scroll down to explore these 15000 to 20000 range mobile phone that offer the best performance and specs within the budget. Read more

buy smartphone at best price on daraz.com.bd

১০,০০০ টাকার মধ্যে ৫ টি বাজেট মোবাইল ফোন (২০২১)

স্মার্টফোন কিনবেন বলে চিন্তা করছেন?

রকমারী স্মার্টফোন, বাহারী ফিচার ও বৈচিত্র্যময় স্পেকস আপনাকে নিশ্চিতভাবেই গভীর ভাবনার মধ্যে ফেলবে। আর বাজেট নিয়ে হিসাব আর পকেটের দুশ্চিন্তা তো থেকেই থাকে। সেক্ষেত্রে নতুন মোবাইল ফোন কেনার প্রথম পূর্বশর্ত হল মোবাইলের দাম ও বাজেটের মধ্যে সম্মিলন ঘটানো। কম দামে ভালো ফোন খুঁজে বের করা খুব একটা সহজসাধ্য কাজও নয়। মোবাইল ফোন শপিং কে সহজ করতে এবার দেখে নেই মাত্র ১০,০০০ টাকা দামের মধ্যে ২০২১ সালের ৫ টি সেরা ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন, যা নিঃসন্দেহে আপনার মোবাইল ফোনের চাহিদা মেটাবে শতভাগ।

১০,০০০ টাকায় ৫ টি মোবাইল ফোন একনজরেঃ

shop samsung galaxy a01 mobile from daraz.com.bd১। স্যামসাং গ্যালাক্সি এ০১ – ফিচার ও দাম

[মোবাইলটি কিনতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে]

  • প্রসেসরঃ কুয়ালকোম স্ন্যাপড্রাগন অক্টাকোর
  • র‍্যাম/রমঃ ২ জিবি, ১৬ জিবি
  • ডিসপ্লেঃ ৫.৭”
  • ক্যামেরাঃ ব্যাক (১৩, ২) এমপি ডুয়েল, ফ্রন্ট ৫ এমপি
  • অপারেটিং সিস্টেমঃ অ্যান্ড্রয়েড ১০
  • ব্যাটারিঃ ৩,০০০ এমএএইচ

২। অ্যালক্যাটেল ৩ – ফিচার ও দাম

order alcatel 3 smartphone from daraz.com.bd[মোবাইলটি কিনতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে]

 

  • প্রসেসরঃ এসডিএম অক্টাকোর
  • র‍্যাম/রমঃ ৩ জিবি, ৩২ জিবি
  • ডিসপ্লেঃ ৫.৯”
  • ক্যামেরাঃ ব্যাক ১৬ + ৫ এমপি, ফ্রন্ট ১৩ এমপি
  • অপারেটিং সিস্টেমঃ অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ পাই
  • ব্যাটারিঃ ৩,৫০০ এমএএইচ

 

৩। শাওমি রেডমি ৯ – ফিচার ও দামxiaomi redmi 9

[মোবাইলটি কিনতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে]

  • প্রসেসরঃ অক্টা-কোর
  • র‍্যাম/রমঃ ৩ জিবি র‍্যাম ও ৩২ জিবি রম
  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫৩” ফুল এইচডি 
  • ক্যামেরাঃ এআই কোয়াড (১৩+৮+৫+২) এমপি
  • অপারেটিং সিস্টেমঃ অ্যান্ড্রয়েড ১০

৪। রিয়েলমি সি২১ – ফিচার ও দাম

[মোবাইলটি কিনতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন]

 

  • প্রসেসরঃ অক্টা-কোর
  • র‍্যাম/রমঃ ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি রম
  • ডিসপ্লেঃ ৬.৫” এইচডি
  • ক্যামেরাঃ ট্রিপল (১৩+২+২) এমপি ব্যাক ও ৫ এমপি ফ্রন্ট
  • অপারেটিং সিস্টেমঃ অ্যান্ড্রয়েড ১০
  • ব্যাটারিঃ ৫,০০০ এমএএইচ

order micromax q4261 at daraz.com.bd৫। মাইক্রোম্যাক্স কিউ ৪২৬১ – ফিচার ও দাম

[মোবাইলটি কিনতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন]

  • প্রসেসরঃ ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর
  • র‍্যাম/রমঃ ৩ জিবি র‍্যাম ও ১৬ জিবি রম
  • ডিসপ্লেঃ ৫” আইপিএস
  • ক্যামেরাঃ ৮ এমপি ব্যাক ও ৫ এমপি ফ্রন্ট
  • অপারেটিং সিস্টেমঃ অ্যান্ড্রয়েড ৭.০
  • ব্যাটারিঃ ২,৫০০ এমএএইচ

 

মোবাইলের দাম নিয়ে নেই আর কোন ভাবনা!

মাত্র ১০,০০০ টাকা (দশ হাজার) বাজেটের মধ্যেই কিনে ফেলুন স্বপ্নের স্মার্টফোন। অসাধারণ ফিচার ও ডিজাইন সমৃদ্ধ সেরা ব্র্যান্ডের মোবাইল হাতের মুঠোয়। এখন ঘরে বসেই দারাজ থেকে অনলাইনে মোবাইল ফোন অর্ডার দিয়ে হোম ডেলিভারি নিতে পারবেন ঢাকা সহ সারা বাংলাদেশের যেকোন যায়গা থেকেই। এখন দারাজ অনলাইন শপিং ওয়েবসাইট ও অ্যাপে আপনার জন্য সেরা সব ডিল অপেক্ষা করছে আকর্ষণীয় ভাউচারের সৌজন্যে।

<<জনপ্রিয় সকল ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন খুঁজুন এই লিঙ্কে>>

এছাড়াও মোবাইল সম্পর্কে আরও পড়ুনঃ

>>সাশ্রয়ী মূল্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ৫ টি মোবাইল<< 

electronics week campaign of daraz bd

দারাজে শুরু হচ্ছে ইলেকট্রনিক্স (মোবাইল) উইক নামক বিশাল মেলা!

দেশের অন্যতম জনপ্রিয় ইলেকট্রনিক্স উইক ক্যাম্পেইন ৯ জুন থেকে শুরু হয়ে চলবে একেবারে ১৫ জুন পর্যন্ত। দারাজ ইতিমধ্যেই সেরা দামে বাংলাদেশের ক্রেতাদের কাছে সেরা ও মানসম্মত পণ্য সরবরাহ করে গ্রাহকদের বিশ্বাস, নির্ভরতা এবং আস্থা অর্জনের সাথে সাথে চমৎকার গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জন করেছে। মূলত সেই সফলতার রেশ ধরেই দারাজের আয়োজনে এবারও থাকছে জনপ্রিয় কিছু ইলেকট্রনিক্স পণ্য ও মোবাইল ফোন ব্র্যান্ডের সেরা সব ডিল। আর অনলাইনে বাংলাদেশি ক্রেতারা যাতে করে চাহিদার সেরা পন্যটি সবচেয়ে সেরা দামে নিজের হাতে পায়, সেটা নিশ্চিত করতে দারাজের আকর্ষণীয় ডিসকাউন্ট অফার ও লাভজনক দারাজ ভাউচার তো থাকছেই!

সেরা বাজেট, সেরা ব্র্যান্ড, সেরা স্মার্টফোন

আপনি যদি দারাজ ইলেকট্রনিক্স উইক ক্যাম্পেইনের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ খুঁজতে চান, তাহলে সেটা হবে সেরা বাজেট দামে সেরা ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন নিঃসন্দেহে। আর দারাজ আপনাকে নিশ্চিত করবে পছন্দের মোবাইল বা স্মার্টফোনের সাশ্রয়ী দাম, অফিশিয়াল ব্র্যান্ড ওয়্যারেন্টি ও সহজ রিটার্ণ পলিসি। তাছাড়া ক্রেতারা যেকোন নির্দিষ্ট ব্র্যান্ডের ১০০% অরিজিনাল পণ্যই পছন্দ মাফিক কিনতে পারবেন।

সেরা এক্সেসরিজ, সাশ্রয়ী দাম, সেরা মূল্যছাড়

দারাজ ইলেকট্রনিক্স উইক বিভিন্ন মোবাইল এক্সেসরিজ যেমন পাওয়ার ব্যাংক, হেডফোন ও স্মার্ট ওয়াচ -এর উপর অবিশ্বাস্য মূল্যছাড় দিচ্ছে। ক্রেতারা এখন নামীদামী বিভিন্ন গ্যাজেট, মোবাইল কেইস ও কভার -এর উপর কল্পনার চেয়েও অধিক হারে ডিসকাউন্ট অফার উপভোগ করতে পারবেন।

অনলাইন পেমেন্ট মেথডে বাড়তি ডিসকাউন্ট

ইলেকট্রনিক্স উইকের আকর্ষনীয় বিভিন্ন ডিলের বাইরেও ক্যাম্পেইনের পেমেন্ট পার্টনার ব্যাংক এর যেকোন ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড এর মাধ্যমে গ্রাহকরা অতিরিক্ত ছাড় পাবেন। আর বিকাশ পেমেন্টে লোভনীয় ক্যাশব্যাক অফার তো থাকছেই।

থাকছে ইলেকট্রনিক্স উইক ভাউচার

মোবাইল ও এক্সেসরিজকে আরও সাশ্রয়ী করতে সপ্তাহজুড়ে থাকছে ইলেকট্রনিক্স উইক ভাউচার, যা আপনার কেনাকাটাকে করবে আগের থেকে আরও বেশী সাশ্রয়ী।

ডিসকাউন্টের পাশাপাশি থাকছে ফ্ল্যাশ সেল

দারাজ তার ক্রেতাদের মাঝে চমক সৃষ্টি করে ইলেকট্রনিক্স উইক ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময়ে চলবে ফ্ল্যাশ সেল। বিভিন্ন নামী ব্র্যান্ডের জনপ্রিয় মোবাইল ফোন ও এক্সেসরিজের উপর আকর্ষনীয় ফ্ল্যাশ সেল চলমান থাকবে। ইলেকট্রনিক্স উইকের আকর্ষনীয় ডিলগুলো দেখতে এখনই ভিজিট করতে পারেন দারাজ মোবাইল উইক(Daraz Mobile Week) ক্যাম্পেইন পেজে। এছাড়া ক্যাম্পেইনের সকল ডিল ও ডিসকাউন্ট অফার সম্পর্কে প্রতিনিয়ত আপডেট পেতে লগইন করে রাখতে পারেন আপনার দারাজ অ্যাপ অ্যাকাউন্টে।

তাই আর দেরি না করে এখনই ডাউনলোড করুন দারাজ মোবাইল অ্যাপ এবং বাংলাদেশের সেরা ডিল লুফে নিন মোবাইলেই।

eid shopping fest sale of daraz.com.bd

পবিত্র মাহে রমজানঃ রোজা শুরুর আগেই হোক প্রস্তুতি

বছর ঘুরে আবার চলে এল সিয়াম সাধনার মাস পবিত্র মাহে রমজান। আসন্ন ঈদ কে ঘিরে প্রতি বছর এই সময় ঘরে ঘরে আসে একটা আনন্দের আমেজ এবং তার সাথে থাকে ঈদ নিয়ে নানানরকম জল্পনা-কল্পনা। এই সময়টায় সাধারণ জীবনযাত্রায় চলে আসে আমূল পরিবর্তন, কিছুটা পরিকল্পনা মাফিক চলাফেরা করলে রমজান মাসটা কাটানো যাবে স্বস্তি আর স্বাচ্ছন্দ্যে। তাই আজকে আমি আপনাদের সুবিধার্থে দিয়ে দেব কিছু রমজানের টিপস এবং আইডিয়া।

প্রতিবারের মত এবারও রমজান মাসে, বাইরের তাপমাত্রা খুব একটা সহনীয় থাকবে না, তাই চেষ্টা করুন আগে থেকে রান্নার প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনে রাখতে যাতে রোজা রেখে অযথা জ্যাম ঠেলতে না হয়। সময় বাঁচাতে চাইলে ঘরে বসে দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং মল দারাজেই সেরে ফেলতে পারবেন যাবতীয় কেনাকাটা।

দুঃসহ গরমে ইফতারের সময় এক গ্লাস ঠাণ্ডা জুস দূর করতে পারবে সারাদিনের ক্লান্তি। বাজারের কৃত্রিম উপাদানে তৈরি জুস না কিনে, তাজা ফলের রস খেতে চেষ্টা করুন এতে আপনি আরও সতেজ অনুভব করবেন। নিত্যদিন জুস বানানোর জন্য রমজানের আগেই কিনে নিতে পারেন জুসার ও ব্লেন্ডার মেশিন, যাতে প্রথম রোজার ইফতার শুরু করতে পারেন একটি স্বাস্থ্যপ্রদ উপায়ে।

রমজান মাস শুরু হওয়ার আগেই কিছুটা সেমি- প্রসেসে করে রাখতে পারেন ইফতারের বৈচিত্র্যময় আইটেম। এতে করে ইফতারের মেনুতে একঘেয়েমি আসবে না এবং রোজা রেখে আপনার সারাদিন রান্নাঘরে কষ্ট পোহাতে হবে না। খাবার প্রস্তুত করার জন্য দারাজের গ্রোসারি ক্যাটাগরিতেই পাবেন হরেক রকম মাছ, মাংস এবং নানা পদের সবজিজাত দ্রব্য।

প্রতিদিন রান্নায় নতুনত্ব আনা বেশ কঠিন হয়ে যাই, যখন অন্য হাজারো চিন্তা থাকে ঈদকে ঘিরে। সেক্ষেত্রে রমজানের আগেই তৈরি করে ফেলুন একটি সাপ্তাহিক মেনু প্ল্যান। এই প্ল্যান মেনে চললে, রোজ আপনার খাদ্য তালিকায় গুরুত্বপূর্ণ প্রোটিন, ফ্যাট এবং শর্করার পরিমাপ নিশ্চিত করতে পারবেন।

বছরের সবচেয়ে বড় উৎসবের প্রস্তুতি নিতে রমজানের আগেই সাজিয়ে ফেলুন আপনার বাজেট। প্রতি ক্ষেত্রে কতটা ব্যয় করবেন, যেমন চাকুরীজীবীদের ক্ষেত্রে ঈদ বোনাস এবং ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে বাড়তি ইনকাম বিশাল একটা ভূমিকা পালন করে বাজেট প্ল্যানিং-এ। একটু সময় করে বাজেট নিয়ে ভাবলে টাকা-পয়সা নিয়ে অযথা দুশ্চিন্তা মনে ভর করবে না। যেহেতু বাজেট প্ল্যানিং নিয়ে বলছি, একটা কথা অবশ্যই বলব দারাজ অনলাইন শপিং ওয়েবসাইটে(daraz.com.bd) চোখ রাখতে। পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে নানানরকম আকর্ষণীয় দামে এবং মূল্যছাড়ে পেয়ে যাবেন পছন্দের পণ্য আপনার স্বাদ এবং সাধ্যের মধ্যেই। রমজান ও ঈদের কেনাকাটা সহজে করতে চোখ রাখতে পারেন দারাজ ঈদ শপিং ফেষ্ট ক্যাম্পেইনে।

অবশেষে, উপরে উল্লেখিত টিপস অনুযায়ী রমজানের প্রস্তুতি নিলে আশা করি, বেশ আরামসেই কেটে যাবে এই বছরের রমজান মাস, এরপর শুধু থাকবে অধীর আগ্রহ নিয়ে রোজার ঈদের অপেক্ষা।

ঈদ ফ্যাশনে পাঞ্জাবি

ঈদ ফ্যাশনে পাঞ্জাবীঃ সেরা দশ ব্র্যান্ড দারাজে

আমাদের সবার কাছেই ঈদ মানে নতুনত্ব। ঈদ মানে বাড়তি আনন্দের উৎসবের আবীর মাখানো রঙ। ঈদ মানেই নতুন পোশাকে নিজেকে নতুন ভাবে সাজিয়ে তোলা। ছোট-বড় সবাই ঈদে নতুন পোশাকে নিজেদেরকে সাজাতে চায়। বর্তমান সময়ের তরুণদের মধ্যে বিভিন্ন স্টাইল আর ডিজাইনের পাঞ্জাবী পরার প্রবণতা দেখা যায়। পাঞ্জাবীতে যেমন ফুটে ওঠে ব্যক্তিত্ব, তেমন লুকেও আসে সৌন্দর্য। সুন্দর রঙ ও বাহারী ডিজাইনের পাঞ্জাবী এখনকার আধুনিক তরুণ প্রজন্মের প্রথম পছন্দ।

যে কোন বয়সি বাঙালী তরুণ অথবা পুরুষকে যদি জিজ্ঞেস করা হয়, এবার ঈদে কী কিনছেন, প্রায় সকলের কাছ থেকে একই উত্তর পাওয়া যাবে। আর তা হল ছেলেদের নতুন পাঞ্জাবী নিঃসন্দেহে। ঈদে নতুন পাঞ্জাবী না হলে একেবারেই চলে না ছেলেদের। পাঞ্জাবীর পাশাপাশি অনেকে হয়তো ছেলেদের শার্ট, পোলোছেলেদের টি শার্ট কিনে থাকেন। কিন্তু ঈদ আসলে পাঞ্জাবী তো অবশ্যই কিনবেন ছেলেরা।

popular panjabi in daraz bd

ঈদের প্রথম প্রহরের অবিচ্ছেদ্য অংশ পাঞ্জাবী

ঈদের সকালে পাঞ্জাবি ছাড়া দিনটাই অসম্পূর্ণ। কেবল নামাজ আদায় করার জন্য যাওয়ার নয়, উৎসবমুখর পরিবেশে দিনভর প্রিয়জনের সাথে ঘুরে বেড়াতে বেশিরভাগ পুরুষ পাঞ্জাবিকে রাখেন প্রথম পছন্দ হিসেবে। যেহেতু এবারের ঈদটা এবার রোদ ও বৃষ্টির সংমিশ্রনে গরমের সময়, তাই হালকা ওজনের সুতি এবং কটন পাঞ্জাবিই হতে পারে সেরা ঈদ ফ্যাশন। রঙের ব্যাপারে উজ্জ্বল ও গাড় রঙগুলোকেই প্রাধান্য দেয় তরুণ প্রজন্ম। আর ধীরে ধীরে পাঞ্জাবিতে এম্ব্রয়ডারি কিংবা হস্ত শিল্পের চাহিদা দিন দিন কমছে আর সেই জায়গায় পুরুষরা এখন নরমাল পাঞ্জাবির দিকেই বেশি ঝুঁকছেন। এছাড়া স্ক্রিন ও ব্লক প্রিন্টেড এবং সবসময়ের পছন্দ স্ট্রাইপড পাঞ্জাবী তো আছেই।

Best Panjabi at Best Price

গরম এবং বৃষ্টি দুটোর কথাই মাথায় রেখে এবারের ঈদে পাঞ্জাবীর কাপড়ে ভিন্নতা এনেছে দেশের সেরা ও জনপ্রিয় বিভিন্ন ব্র্যান্ড। প্রতিবারের মতোই নতুন সব ডিজাইনের পাঞ্জাবী পাওয়া যাচ্ছে দারাজ অনলাইন শপিং ওয়েবসাইট তথা অ্যাপে। বর্ষার ম্যাড়ম্যাড়ে আবহাওয়াকে দূর করতেই যেন রঙিন সব কাপড় ব্যবহার করা হচ্ছে পাঞ্জাবীতে।

বাংলাদেশের সেরা ১০ ব্র্যান্ড

দেশের এক নম্বর অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ বাংলাদেশ লিমিটেড পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে জনপ্রিয় ও দেশসেরা ১০ টি ব্র্যান্ডের এক্সক্লুসিভ ডিজাইনের অসংখ্য পাঞ্জাবীর সুবিশাল সংগ্রহশালা নিয়ে হাজির হয়েছে ক্রেতাদের কাছে।

Top panjabi brands in daraz bd

ঈদে পাঞ্জাবীর সেরা ব্র্যান্ডসমূহঃ

Yellow, Ecstacy, Lubnan, Gentle Park, O2, Hike, O Code, Lavelux, Apara, Le Reve ইত্যাদি সেরা ব্র্যান্ডের সেরা পাঞ্জাবী থেকে আজই খুঁজে নিন আপনার জন্য উপযুক্ত পাঞ্জাবী টি। বাঙ্গালীর চিরায়ত ও ঐতিহ্যবাহী পোশাক পাঞ্জাবী কিনতে ঘুরে আসতে পারেন দারাজের ঈদের পাঞ্জাবী কালেকশন থেকে।

রোদ-বৃষ্টির ঝক্কি-ঝামেলা ঝেড়ে ফেলে, রাজ্যের জ্যাম কাটিয়ে আর প্রথাগত ঈদ শপিং -এর কঠিন ধকল পেরিয়ে গরমের মধ্যে হাতের কাছেই যদি দারাজের মত সহজ আর নির্ভরতাময় অনলাইন শপিং থাকে, তবে আর দুশ্চিন্তা কি! তাই পাঞ্জাবি সহ ঈদ শপিং সেরা ডিল উপভোগ করতে দারাজ ঈদ বিগ সেল ক্যাম্পেইনে ভিজিট করতে পারেন আজই। আর দারাজ অনলাইন গরুর হাট থেকে বাছাইকৃত ১০০% অর্গানিক গরু ক্রয় করে লাভবান হতে পারেন আপনিও।

এছাড়া দেখতে পারেন:
কাতান শাড়ি

ঈদ ফ্যাশনে পাঞ্জাবি

ফ্যাশনে পাঞ্জাবি? দেখে নিন সেরা ৫ টি পাঞ্জাবি ব্র্যান্ড!

পাঞ্জাবী বাঙালির একটি ঐতিহ্যবাহী পোশাক হিসেবেই সমগ্র বাংলাদেশে দারুন ভাবে সুপরিচিত। বাঙালির ঐতিহ্যের প্রতিক হিসেবে পরিচিত এই বিশেষ পোশাকটি অবশ্য এদেশের প্রেক্ষাপটে একটি ঐতিহাসিক পোশাক হিসেবেও বিবেচিত। যার কারনে বাঙালির প্রত্যেক সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় উৎসব সমূহে পাঞ্জাবী হয়ে ওঠে ছেলেদের প্রথম পছন্দ। তবে ছোট-বড় বিভিন্ন উৎসব ছাড়াও বিয়ে-শাদি অথবা জন্মদিনের মত অনুষ্ঠানে পাঞ্জাবী ও শেরওয়ানির চাহিদা আমাদের দেশে রীতিমত ঈর্ষণীয়। এসব কারনে প্রতিবছর ঈদ বা যেকোন পালা-পার্বনে অথবা যে কোন বড় ধরণের উৎসবে বা অনুষ্ঠানে পাঞ্জাবীর শপিং কে ঘিরে ক্রেতাদের উৎসাহ-উদ্দিপনার মাত্রা যেমন বাড়তি পর্যায়ে থাকে, ঠিক তেমনি ভাল দামে ভাল পাঞ্জাবী নিয়েও জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া বেশ ভাল ভাবেই ফুটে ওঠে। তবে পাঞ্জাবী নিয়ে দুশ্চিন্তায় ইতি টানবার সময় অবশ্যই এখন, বর্তমান সময়ে অনলাইনে পাঞ্জাবীর শপিং খুব সহজসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর সবচেয়ে বেশি সংখ্যক পাঞ্জাবি ডিজাইন ২০২০ ও কালেকশন নিয়ে দেশের জনপ্রিয় অনলাইন শপ দারাজ প্রস্তুত আছে আপনার হাতের নাগালেই। এক্ষেত্রে দারাজের সম্মৃদ্ধ ব্র্যান্ড তালিকা আপনার পাঞ্জাবী শপিং কে আর একটু সহজ করে দিতে পারে।

চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক দারাজের তালিকাভুক্ত সেরা পাঁচটি পাঞ্জাবি ব্র্যান্ডঃ

১। জেন্টেল পার্ক পাঞ্জাবি

জেন্টেল পার্ক দেশের সবচেয়ে সেরা পাঞ্জাবী ব্র্যান্ড গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি ব্র্যান্ড। পাঞ্জাবীর শপিং এর ক্ষেত্রে সব সময়ের জন্য ক্রেতাদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে থাকে দেশের জনপ্রিয় এই ব্র্যান্ড। সবচেয়ে বড় সুবিধা হল, আপনার চাহিদা অনুযায়ী পছন্দের সব পাঞ্জাবীই জেন্টেল পার্কে পাবেন মনের মত দামে। এজন্য অনলাইনে আপনার পাঞ্জাবীর শপিং কে আরামদায়ক করতে জেন্টেল পার্কের সব ধরণের সুতির পাঞ্জাবী দারাজে রাখা হয়েছে সমুন্নত হারে। আর ফ্যাশন সচেতন ছেলেদের জন্য জেন্টেল পার্কের সব ধরণের স্টাইলিস পাঞ্জাবীই থাকছে দারাজের কালেকশনে।

২। লা রিভ পাঞ্জাবি

দেশের আর একটি জনপ্রিয় পাঞ্জাবীর ব্র্যান্ড হচ্ছে লা রিভ। লা রিভের সেরা ডিজাইনের সব পাঞ্জাবীই এখন পাচ্ছেন দারাজের কালেকশনে। মান ও দামে বরাবরের মত সেরা এই পাঞ্জাবীর ব্র্যান্ডটি আপনাকে যুগোপযোগি ফ্যাশনের আধুনিক সব টেস্ট যোগাবে। তাই দারাজের কালেকশনে থাকা লা রিভের সব আধুনিক মানের পাঞ্জাবী দেখে নিতে পারেন এক নজরে।

৩। একস্ট্যাসি পাঞ্জাবি

পাঞ্জাবী ব্র্যান্ডের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ নিঃসন্দেহে অনেক দূর এগিয়েছে বর্তমানে। বর্তমানে দেশে একস্ট্যাসির মত বড় ব্র্যান্ড আছে, দারাজে যে ব্র্যান্ডের পাঞ্জাবী আছে বেশ বিস্তৃত পরিসরেই। একস্ট্যাসির সবচেয়ে বড় সাতন্ত্র হল রুচিশীল ডিজাইন ও সুন্দর কারুকাজ, আর সব ধরণের সুতির পাঞ্জাবীই একস্টেসি সরবরাহ করে থাকে। তাই দারাজের কালেকশনে থাকা একস্ট্যাসির পাঞ্জাবী আপনার ট্রেন্ডি চাহিদা পূরণে সহায়তা করবে অনেকটা সহজেই।

৪। লুবনান পাঞ্জাবি

লুবনান বাংলাদেশের একটি অন্যতম খ্যাতি সম্পন্ন পাঞ্জাবীর ব্র্যান্ড। ভাল মানের পাঞ্জাবী সংগ্রহে তাদের খ্যাতি আছে অনেক আগ থেকেই। চমৎকার প্রিন্টের পাঞ্জাবীতে ফুটিয়ে তোলা আভিজাত্য এই সুপরিচিত ব্র্যান্ডকে নিশ্চিত ভাবে অন্যান্যদের থেকে আলাদা করেছে। সেজন্য দারাজের কালেকশনে থাকা লুবনানের পাঞ্জাবী এখন বাছাই করতে পারেন নিশ্চিন্তেই।

৫। লাক্সবা পাঞ্জাবি

দারাজের কালেকশনে থাকা লাক্সবার বিভিন্ন ডিজাইনের পাঞ্জাবী আপনার পাঞ্জাবী ফ্যাশনের ধারণা পাল্টে দিতে পারে নিঃসন্দেহে। সুতির পাঞ্জাবীতে চোখ ধাঁধানো চেক আপনার মন ভুলিয়ে দিতে পারে পারতপক্ষে। দারাজের বিশাল পাঞ্জাবী কালেকশনে থাকা লাক্সবার পাঞ্জাবী সমূহ তাই এক ঝলক দেখে নিতে পারেন একেবারে চাপ মুক্ত থেকেই।

দেশ সেরা এই ৫ টি পাঞ্জাবি ব্র্যান্ড অনলাইনে আপনার পাঞ্জাবী শপিং এর জন্য হতে পারে সবচেয়ে বড় সমাধান। তাই দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই ব্র্যান্ড সমূহের পাঞ্জাবীতে নিশ্চিত ছাড় উপভোগ করতে পারেন শুধুমাত্র দারাজ অনলাইন শপে ভিজিট করেই।

saree collection 2020

7 Traditional Sarees Every Woman Must Have In Her Wardrobe

Saree is one of the most powerful symbol of tradition for south asian countries. History has been stuck within Saree for centuries as woman’s national wear from subcontinental period to today’s Bangladesh. Even this traditional wear of women is the regular wear for most of the bangladeshi women. As tradition is mixed with every contexture of women’s saree, different types of traditional bangladeshi saree from every corner of the country are found with several designs. Read more

ডায়াবেটিস ও করোনা

নভেল করোনা থেকে ডায়াবেটিস রোগীদের বাচার সহজ উপায়

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যারা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের বেশির ভাগই দীর্ঘমেয়াদী রোগ যেমন- ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগসহ ফুসফুসের অসুখ ইত্যাদি সমস্যায় ভুগছিলেন। বিশেষজ্ঞদের মতেও, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে কোভিড-১৯ এর ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় বেশি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সমীক্ষা অনুযায়ী, ২০১৪ সালের তথ্য অনুসারে পৃথিবীতে ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪২২ মিলিয়নেরও বেশি। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে সারা পৃথিবীতে ২৩ কোটি ২০ লাখ ডায়াবেটিস রোগী রয়েছেন।

নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে বেশি ভর্তি হয়েছেন ডায়াবেটিস, ফুসফুস এবং হৃদরোগের মতো দীর্ঘস্থায়ী রোগীরা। এমনকি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকা পাঁচজনের মধ্যে অন্তত একজন এসব দীর্ঘমেয়াদী রোগে আক্রান্ত। রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রসমূহের সর্বশেষ প্রতিবেদনেও উঠে এসেছে এমন তথ্য।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)’র রিপোর্ট অনুসারে, করোনায় আক্রান্ত ৭ হাজার ১৬২ জনের মধ্যে ৩৭ দশমিক ৬ শতাংশই কোনো না কোনো দীর্ঘমেয়াদী রোগে ভুগছিলেন।

আর রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকা ৭৮ শতাংশ করোনা রোগীর মধ্যে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ছিলেন ৩২ শতাংশ, হৃদরোগে ২৯ শতাংশ, ফুসফুসের দীর্ঘস্থায়ী রোগে ২১ শতাংশ আর ১২ শতাংশেরও বেশি রোগী কিডনি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। অন্যদিকে মাত্র ৯ শতাংশ রোগীর মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত ছিল।

কেন ডায়াবেটিসে আক্রান্তরা বেশি ঝুঁকিতে?

বিশেষজ্ঞদের মতে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। এর ফলে যে কোনো সংক্রমণের আশঙ্কা দ্বিগুণ বেড়ে যায়। এমনকি করোনার ঝুঁকিও।

এ সময় যা করা উচিত

  1.  দিনে অন্তত ৫ থেকে ৬ বার, কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুতে হবে। স্যানিটাইজারের চেয়ে সাবান উত্তম।
  2.  রান্না, পরিবেশন ও খাওয়ার আগে হাত ভালো করে ধুয়ে নিন। নিজের ব্যবহৃত বাসনপত্র এমনকি কাপড়ও আলাদা করতে হবে।
  3.  পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যকর খাবার যেমন- শাক, সবজি, ফল, মুরগির মাংস, মাছ, ডিম, ব্রাউন রাইস, হোল গ্রেন বা মাল্টি গ্রেন আটা ইত্যাদি খেতে হবে।
  4.  এ সময় হাতের কাছে মিষ্টিজাতীয় খাবার রাখতেও ভুলবেন না যেন! যদি হঠাৎ ডায়াবেটিস খুব কমে যায়, তখন কাজে আসবে।
  5.  প্রয়োজনীয় ওষুধ ও ইনসুলিন পর্যাপ্ত কিনে রাখুন। মেশিনে সুগার মাপার স্ট্রিপও কিনে রাখুন। এতে করে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

তথ্যসূত্র: আল জাজিরা

করোনা সচেতনতা নিয়ে আরও পড়ুনঃ

করোনা থেকে বাচার উপায়

গুরুত্বপূর্ণ ৫ টি টিপস – করোনা থেকে নিরাপদ থাকার প্রস্তুতি

করোনাভাইরাস দিনকে দিন বিশ্বে ভয়ংকর রূপ নিচ্ছে। এ রোগের কারণে একে একে মৃত্যুর দুয়ারে গেছেন ১১ হাজারের বেশি মানুষ। মহামারি এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। দেখা যাচ্ছে, এ রোগে দ্রুত আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধদের মধ্যেই বেশি। চীন থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বৃদ্ধদের, বিশেষ করে যাঁরা দীর্ঘস্থায়ী চিকিৎসা নিচ্ছেন, তাঁদের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। এরই মধ্যে করোনায় সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন বয়স্ক ব্যক্তিরাই।

সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের অনেক দেশেই বলা হয়েছে, ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সের ব্যক্তিরা, যাঁদের দৈহিক বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে, তাঁরা যেন জনসমাগম এলাকা এড়িয়ে চলেন। তাঁরা যেন বাড়িতে থাকেন। বয়স্কদের সাবধানে কীভাবে রাখবেন, এর জন্য কয়েকটি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে WHO এর পক্ষ থেকেঃ

০১। ওষুধ ও প্রয়োজনীয় জিনিস মজুদ রাখা

দরকারি ওষুধ ও প্রয়োজনীয় জিনিস আগে থেকে কিনে বাসায় রাখতে হবে। বাসার বৃদ্ধরা দুর্বল ও দীর্ঘদিন অসুস্থ হলে আমেরিকার সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) সুপারিশ করেছে, বেশ কিছু সপ্তাহের ওষুধ ও অন্যান্য জিনিস বাড়িতেই যেন রাখা হয়। সিডিসি তাদের নাগরিকদের বলেছে, প্রয়োজনীয় খাদ্য, ওষুধ এবং অন্যান্য চিকিৎসা পণ্যের সরবরাহগুলো আগে থেকে মজুত করে রাখুন। প্রিয়জনদের কী কী ওষুধ প্রয়োজন, তার খেয়াল পরিবার যেন রাখে। বাসার বয়স্কদের দিকে একটু সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিন।

০২। পরিষ্কার–পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখুন

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। ২০ সেকেন্ড ধরে নিজেদের হাত সাবান–পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই পরামর্শ করোনাভাইরাস সচেতনতার জন্য সবাই দিচ্ছেন। যদি হ্যান্ডওয়াশ-পানি না থাকে, সে ক্ষেত্রে স্যানিটাইজার দিয়েও হাত ভালোভাবে ঘষে নিতে হবে। বাড়ি ও কর্মক্ষেত্রের জায়গাও যেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে, এ বিষয়ে নিশ্চিত থাকতে হবে। নিয়মিত বাড়ি ও কাজের জায়গা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করুন। এমনকি ইলেকট্রনিকসের জিনিসগুলোও নিয়মিত পরিষ্কার করুন।

০৩। কোনো জিনিস শেয়ার নয়

যৌথ পরিবারে সবাই একসঙ্গে থাকেন। একেকজনের ঝুঁকি একেক ধরনের হতে পারে। এ রকম অবস্থায় সবারই ঝুঁকি রয়েছে বলেই ধরে নিতে হবে। একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো, একই পরিবারে বৃদ্ধ ও শিশুরা থাকে। তাদের এই সময়ে বা মাঝেমধ্যে সর্দি-কাশি হয়। সে ক্ষেত্রে পরিবারের উচিত ব্যক্তিগত সব জিনিস এই মুহূর্তে আলাদা ব্যবহার করা। যেমন খাবার, পানির বোতল, বাসন-কোসন। প্রয়োজন হলে বাড়ির একটি আলাদা ঘরে অসুস্থ সদস্যকে রেখে দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে আলাদা শৌচাগারের ব্যবস্থাও করলে আরও ভালো হয়।

অনেক বৃদ্ধই আছেন, যাঁরা একা একা থাকেন। সে ক্ষেত্রে কীভাবে তাঁরা নিজেদের যত্ন নেবেন, সে বিষয়ে আগে থেকে পরিকল্পনা করে নিতে হবে। ফোন বা ই–মেইল কীভাবে ব্যবহার করবেন, জরুরি ফোন নম্বর, চিকিৎসকের নম্বর সব যেন হাতের কাছে থাকে।

০৪। আতঙ্ক নয়, আলোচনা করুন

অযথা আতঙ্কিত না হয়ে কোভিড-১৯ সম্পর্কে প্রতিবেশী, পরিবার-স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে আলোচনা করতে হবে। কেউ আক্রান্ত হলে আগাম প্রস্তুতি কী হবে, তা নিয়ে পরিকল্পনা করে রাখুন। কোভিড-১৯ সম্পর্কে যতটা সম্ভব সচেতনতা বাড়াতে হবে, বিশেষ করে বয়স্কদের ক্ষেত্রে এটা আরও প্রয়োজন। তাঁরা যাতে কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে না বের হন, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। বৃদ্ধদের আশ্বস্ত করুন যে এ রোগে ভয়ের কিছু নেই।

০৫। চিকিৎসকদের পরামর্শ মানুন

করোনা নিয়ে আতঙ্ক না বাড়িয়ে চিকিৎসক-বিশেষজ্ঞদের নির্দেশ মেনে চলাই শ্রেয়। কিছুদিন বৃদ্ধদের বাড়ির বাইরে বের হতে না দিয়ে বাড়িতেই রাখতে হবে। বিভিন্ন ধরনের ফিট থাকার শরীরচর্চা এই সময় তাঁরা করতে পারেন। স্বাস্থ্যকর খাবার এ সময় খুব প্রয়োজন। সর্দি-কাশি হলে তা এড়িয়ে না গিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

করোনার ভয়ে বিশ্ববাসী রীতিমতো একঘরে হয়ে রয়েছেন। বিশ্বের অনেক দেশ তাদের শহরগুলো লকডাউন করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) নিজেদের ওয়েবসাইটে কোভিড-১৯ নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছে প্রতিনিয়ত। সেখানে এ রোগের বিষয়ে সব তথ্য পাওয়া যাচ্ছে।

তথ্যসূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস, সিএনএন

করোনা সচেতনতা নিয়ে আরও পড়ুনঃ

stay safe from corona/covid-19 and let daraz deliver

যে ৫টি কাজ করলে নভেল করোনা থেকে সুস্থ থাকা যাবে

কঠিন এক সময় পার করছে বিশ্ববাসী। নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) হানায় বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। এখন পর্যন্ত শতভাগ কার্যকর প্রতিষেধক আবিষ্কার না হওয়াতে সতর্কতা-সচেতনতাই এই প্রাণঘাতি ভাইরাস থেকে বাঁচার একমাত্র পথ। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই চলছে ধাপে ধাপে লকডাউন। এক দেশের সঙ্গে আর এক দেশের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। অফিস-আদলত বন্ধ থাকলেও স্বল্প পরিসরে কাজ চলছে বাড়ি থেকে।

করোনায় সুস্থ থাকার অতি গুরুত্বপূর্ণ ৫ টি উপায় দেখে নিন একনজরে

০১। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া

সুস্থ থাকার প্রধান উপায় হলো পুষ্টিযুক্ত স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া। এতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বাড়বে এবং ঠিকভাবে কাজ করবে।

০২। মদ্যপান সীমার মধ্যে রাখা

করোনাভাইরাসের এই সময়ে সুস্থ থাকতে হলে মদ্যপানে দায়িত্বশীল হতে হবে। সীমার বাইরে পান করা উচিৎ নয়। চিনিযুক্ত পানীয় পরিহার করতে হবে।

০৩। ধূমপান করা যাবে না

সুস্থ থাকতে হলে ধূমপান করা যাবে না। কোভিড ১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে ধূমপানের কারণে মারাত্মক রোগগুলো বৃদ্ধি পায়।

০৪। শারীরিক কসরত করা

সুস্থ থাকার জন্য শারীরিক কসরত করার কোনো বিকল্প নেই। যদি বাইরে যাওয়ার অনুমতি থাকে তাহলে প্রাপ্ত বয়স্ককে ৩০ মিনিট ও শিশুদের ১ ঘণ্টা দৌড়াতে হবে। আর নাহয় বাসায়ই বিভিন্ন ব্যায়াম-ইয়োগা করা যেতে পারে। অফিসের কাজ বাসায় করলে এক পজিশনে না করা। ৩০ মিনিট পরপর তিন মিনিটের বিরতি নেওয়া।

০৫। মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দেওয়া

মহামারির এই সময়ে মানসিকভাবে শক্ত থাকা খুবই জরুরি। এই সময়ে মানসিক অশান্তি থাকা, চাপ অনুভব করাটা স্বাভাবিক। পরিচিত ও বিশ্বস্তজনের সঙ্গে কথা বলে মানসিক অশান্তি থেকে দূরে থাকা যেতে পারে। কমিউনিটির অন্য মানুষদেরকে সাধ্য অনুযায়ী সহোযোগিতা করা। প্রতিবেশি, বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের খোঁজখবর রাখা। গান শোনা, বই পড়া ও গেম খেলা যাতে পারে। যদি সমস্যা হয় তাহলে সংবাদ দেখা থেকে দূরে থাকা। দিনে একবার কিংবা দুইবার নির্ভযোগ্য গণমাধ্যম থেকে দেশ-বিদেশের খোঁজ-খবর নিলেই হবে।

করোনা নিয়ে আরও জানুনঃ

>>করোনার লক্ষণ ও প্রতিকার

css.php