করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যেসব বিষয়ে সতর্ক হওয়া এখন সবচেয়ে বেশি জরুরী 0 808

বহির্বিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করা করোনাভাইরাস এখন বাংলাদেশের জন্যও অতি আতঙ্কের কারন হয়ে উঠেছে। সর্বশেষ তথ্যানুসারে দেশে কয়েকজনের দেহে এই মরনঘাতি ভাইরাসের প্রমাণও মিলেছে। যদিও এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য মতে ভাইরাসটি নিয়ে এত বেশি আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই, তবুও অনাকাঙ্খিত যেকোন সমস্যা এড়াতে বিশেষ কিছু প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমেই ভয়ানক এই ভাইরাস থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

করোনাভাইরাস প্রতিকারের কিছু সহজ উপায় জেনে নেওয়া যাক ;

১। নিয়মমাফিক হাত ধোয়া

করোনার ভয়াবহ গ্রাস থেকে বাঁচতে কিছুক্ষণ পর পর খুব ভালভাবে হাত ধুতে হবে, যেহেতু হাতের সংস্পর্শে যেকোন কিছু থেকেই এই জীবাণু মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই সাবান অথবা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে ভাল করে হাত ধোয়ার ফলে জীবাণু থেকে সুরক্ষা অনেকাংশেই পাওয়া সম্ভব।

২। হাঁচি-কাশিতে সতর্ক থাকা

সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকার চেষ্টা করুন। অসুস্থ ব্যক্তির হাঁচি বা কাশি থেকে নির্গত ড্রপলেট থেকেই করোনাভাইরাস সবচেয়ে বেশি ছড়িয়ে থাকে। এছাড়া কারোর সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়ে সতর্কতা স্বরূপ হাত মেলানো থেকে দূরে থাকতে পারেন। এক্ষেত্রে অবশ্য হ্যান্ড গ্লাভস কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারে।

৩। নিজেকে রক্ষায় সচেতন হওয়া

অতি জরুরী কোন কাজ না থাকলে ঘরে অবস্থান করাই ভাল। ঘরের বাইরে অবশ্যই ফেস মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। সবসময় হ্যান্ড স্যানিটাইজার সাথে রাখাটা সচেতনতার একটা বড় অংশ হতে পারে।

protect yourself from coronavirus - daraz.com.bd

৪। সঠিক স্বাস্থ্যবিধি মানা

হাত দিয়ে নাক-মুখ খোঁচান থেকে বিরত থাকতে হবে। চোখ সহ মুখমন্ডলকে হাতের সংস্পর্শ থেকে দূরে রাখতে টিস্যু পেপারের ব্যবহার বাড়াতে হবে সর্বক্ষেত্রে। হাঁচি-কাশির সময়ে হাতের কবজি অথবা কনুই দিয়ে মুখ আলতো করে চেপে ধরলে অপরজনের ক্ষতির আশংকা কমে যাবে অনেকাংশে।

৫। খাবারে সাবধানতা অবলম্বন করা

সব ধরণের কাঁচাবাজার সামগ্রী বিশেষ করে শাকসবজি ভাল করে ধুয়ে রান্না করতে হবে। আর মাছ, মাংস যথেষ্ট সিদ্ধ করেই রান্না করা বাধ্যতামূলক। এমনকি ডিম পর্যাপ্ত সিদ্ধ অথবা ভাজি করেই গ্রহণ করা শ্রেয়। ফলমূল খাওয়ার আগে ভাল করে ধুয়ে নিন, পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন এবং ডাক্তারের পরামর্শ অনুসারে ঔষধ সেবন করুন। 

৬। ভ্রমণে সতর্ক হওয়া

যেসব দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা এখন সবচেয়ে বেশি, সেসব দেশে ভ্রমণের কোন প্ল্যান থাকলে তা অতিসত্ত্বর বাতিল করে ফেলা একান্তই কাম্য। 

>>হ্যান্ড ওয়াশ ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার সহ যাবতীয় হ্যান্ড কেয়ার সামগ্রী দেখুন এই লিঙ্কে<<

⇒ যে ৪ টি স্থানে সতর্ক না থাকলেই নয়ঃ

  • লিফটে
  • কর্মক্ষেত্রে
  • গণপরিবহনে
  • গণজমায়েতে

করোনায় অতি মাত্রায় আতঙ্ক আর নয়, প্রয়োজনীয় সচেতনতায় এখন সবচেয়ে প্রয়োজন বলে গণ্য হয় !

করোনাভাইরাস সম্পর্কে আরও জানুন এই পোস্টে ⇓

>>কিভাবে বুঝবেন আপনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত?<<

Ready to download the Daraz App?

Previous ArticleNext Article

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

css.php