মেয়েদের জন্য শীত ফ্যাশনের ৫ টি প্রয়োজনীয় পোশাক (২০২৪) 0 6746

মেয়েদের জন্য শীতকাল হলো বিভিন্ন ফ্যাশন নিয়ে বিভিন্ন এক্সপেরিমেন্ট করার উপযুক্ত সময়৷ ওয়েস্টার্ন ফ্যাশন আর বাঙ্গালীয়ানা মিশেলে কোন ফিউশন নিয়ে ভাবার জন্যেও উপযুক্ত সময় হলো শীতকাল৷ শীতের জন্য উপযুক্ত এমন কিছু মেয়েদের পোশাক টিপস দেখে নেই এক নজরে।

দেখে নিন এই শীতের জন্য মেয়েদের ফ্যাশন কালেকশন

১। লং কোট

লং কোট মেয়েদের এই শীতে

নারীদের মধ্যে এটি বেশ জনপ্রিয়৷ শুধু ঠাণ্ডা থেকে বাঁচতেই না, এটি করে তুলতে পারে আপনাকে বেশ স্টাইলিশ৷ এই কোটটি পেতে পারেন বিভিন্ন রঙে৷ এমনকি এটি পেতে পারেন ডেনিম জিন্স এর মধ্যেও। আজই মেয়েদের কোট ও জ্যাকেট টি অর্ডারকরতে ক্লিক করুন।

২। সোয়েটার

মেয়েদের সোয়েটার কিনুন অনলাইনে

ওয়েস্টার্ন এবং দেশি উভয় আউটফিটের জন্য মেয়েদের সোয়েটার সবসময় মানানসই। তবে অবশ্যই কালার কনট্রাস্ট এবং সাইজের ব্যাপারটিও মাথায় রাখতে হবে৷ আপনার পছন্দসই সোয়েটার অর্ডার করতে ভিজিট করুন।

৩। হুডি

মেয়েদের হুডির নতুন কালেকশন দারাজে

এখন পর্যন্ত শীতের সবচেয়ে ট্রেন্ডি পোশাক হলো হুডি। আমাদের দেশে মেয়েদের জন্য পাওয়া যায় নানা ডিজাইনের নানা রঙের হুডি। শীতের কালারফুল মেয়েদের হুডি আপনাকে এনে দিতে পারে একটু ভিন্ন লুক। ট্রেন্ডি এবং কালারফুল হুডি পেতে ক্লিক করুন এই লিংকে।

৪। শাল

অরিজিনাল কাশ্মীরি শাল এর দাম অনলাইন

শীতের দিনে বাঙালি নারীর অন্যতম পছন্দ হলো শাল৷ বছরের পর বছর ধরে শালের ট্রেন্ড রয়েছে অপরিবর্তিনীয়৷ আর তাই প্রত্যেক বছর এই শালকে ঘিরেই চলে বিভিন্ন ধরণের এক্সপেরিমেন্ট৷ মজার ব্যাপার হলো আধুনিক নারীরা খালি দেশীয় পোশাকের সাথেই যে শাল পরছে তা কিন্তু নয়। ওয়েস্টার্ন অউটফিটেও সুন্দর ভাবে মানিয়ে নিচ্ছে এই শাল৷ দারাজে প্রিয় মেয়েদের শাল এর কালেকশনগুলো একসাথে দেখতে ঘুরে আসুন। এছাড়াও দারাজে পাবেন অরিজিনাল কাশ্মীরি শাল সবথেকে সেরা দামে

৫। বুট জুতা

মেয়েদের বুট জুতা কিনুন দারাজে

ওয়েস্টার্ন লুককে নতুন মাত্রা দিতে বুটসের রয়েছে অন্য ধরণের আবেদন। একজোড়া বুট ম্যাজিকের মতো বদলে দিতে পারে আপনার লুক৷ তারুণ্যকে আরো বাড়িয়ে দিতে চামড়ার বুটের নেই কোনো জুড়ি৷ আর তাই আপনার পছন্দের বুটস খুঁজে পেতে ভিজিট করুন দারাজে মেয়েদের বুট জুতা কালেকশন।

Spread the love
Previous ArticleNext Article

মন্তব্য করুন

ফ্রস্ট নাকি নন-ফ্রস্ট ফ্রিজ – কোন ফ্রিজ বেশি বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী? 0 10657

রেফ্রিজারেটর বা ফ্রিজ এখন আর বিলাসীতার গন্ডিতে আবদ্ধ নয় বরং এটি এখন জীবনযাপনের একটি অন্যতম অপরিহার্য অংশ হিসেবেই বিবেচিত হয়। নিত্যদিনের ব্যবহার্য ও অতি প্রয়োজনীয় এই অ্যাপ্লায়েন্স কেনার আগে তাই কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নজরে না রাখলেই নয়। রেফ্রিজারেটর বা ফ্রিজ কেনার আগে বিশেষ কিছু বিষয় যেমন স্থায়িত্ব, ক্ষমতা, আকার, ডিজাইন, বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের সুবিধা ও প্রযুক্তির ওপর বেশি গুরুত্ব দেওয়া জরুরী। এক্ষেত্রে দারাজ বাংলাদেশ আপনাকে দিচ্ছে সাধ্যের মধ্যে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ফ্রিজ কেনার সর্বোচ্চ নিশ্চয়তা।

ভালো কম্প্রেসার, বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ক্ষমতা ইত্যাদি বিষয় ফ্রিজ বা রেফ্রিজারেটর কেনার আগেই জেনে নেওয়া ভাল। আর ভালো ফ্রিজ খাবারের পুষ্টিমান রক্ষা করার পাশাপাশি জীবনযাপনেও আনে অনেক স্বাচ্ছন্দ্য।

রেফ্রিজারেটর কেনার আগে যেসব বিষয় জেনে রাখা ভালো

কম্প্রেসার

কম্প্রেসার নিঃসন্দেহেই ফ্রিজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। উন্নতমানের একটি রেফ্রিজারেটর কম্প্রেসারের কাজ হল এটি খুব দ্রুততার সাথে ফ্রিজকে ঠাণ্ডা করতে পারে। এছাড়াও অত্যাধুনিক ইনভার্টার কম্প্রেসার আপনার ফ্রিজের বিদ্যুৎ খরচ অনেকাংশেই কমিয়ে দিতে পারে।

আকার ও মডেল

রুমের আকার অনুসারে ফ্রিজ এর আকার ও মডেল পছন্দ করা জরুরী। তবে ফ্রিজের ধারণক্ষমতার বিষয়টিও এক্ষেত্রে মাথায় রাখতে হবে। আর চাহিদানুসারে ফ্রিজের মডেল বাছাই করতে পারলে ফ্রিজ ক্রয় পরবর্তি সব ভোগান্তি থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

সজীবতা

ফ্রিজ ব্যবহারের উদ্দেশ্য শুধুমাত্র খাবারের পচন রোধের জন্যই নয়, বরং খাবারের সজীবতা রক্ষাও ফ্রিজের কার্যকারিতার অংশ বলে বিবেচ্য হয়। তাই খাবারের আর্দ্রতা ও সজীবতা দীর্ঘদিন ধরে রাখতে ভাল ফ্রিজ বাছাই করা অত্যন্ত জরুরী।

ডিজাইন ও রঙ 

ফ্রিজ বা রেফ্রিজারেটরের ডিজাইন ও রঙ আপনার মনের মত হতে হলে ঘরের কালারের সাথে মিল রেখে একটা মানানসই কালার কোড আপনি বাছাই করতে পারেন। এছাড়া আপনার সাধ্যের সমন্বয়ে ডাবল ডোর ফ্রিজ অথবা ডোর ইন ডোর বা সাইড বাই সাইড ডিজাইনের ফ্রিজ এখন দারাজ থেকে বাছাই করতে পারেন।

ওয়ারেন্টি

দারাজে বর্তমানে ৫-১০ বছর পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদের ওয়ারেন্টি সুবিধা রয়েছে। আপনার চাহিদা অনুসারে এখন যেকোন মেয়াদের ওয়ারেন্টি যুক্ত ফ্রিজ দারাজ থেকে সুলভ মূল্যে বেশ সাচ্ছন্দেই বাছাই করতে পারবেন।

রেফ্রিজারেটরের ধরন

বর্তমানে দুই ধরণের ফ্রিজ মার্কেটে বেশ জনপ্রিয় – ফ্রস্ট ফ্রিজ ও নন-ফ্রস্ট ফ্রিজ

ফ্রস্ট ফ্রিজঃ

ফ্রস্ট ফ্রিজের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এই ফ্রিজ অনেক দ্রুত ঠাণ্ডা হয়। দ্রুত বরফ জমার ফলে দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ না থাকলেও এর প্রভাব খাবারের উপর খুব বেশি পড়ে না।

ফ্রস্ট ফ্রিজের উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য সমূহ –

  • খাবার ডিপে রাখলে খুব দ্রুত জমে যায়।
  • বিদ্যুৎ চলে যাওয়ার পরও ফ্রিজে রাখা খাবার অন্তত ৫-৬ ঘণ্টা ভালো থাকে।
  • ফ্রস্ট ফ্রিজের বিদ্যুৎ খরচ কিছুটা কম।

নন-ফ্রস্ট ফ্রিজঃ

নন-ফ্রস্ট ফ্রিজে তেমন বরফ জমে না। এ ধরণের ফ্রিজে বরফ না জমলেও খাবার সংরক্ষণে কোন প্রকার ঝামেলা হয় না। ফ্রিজগুলো আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন হওয়াতে মান নিয়েও সংশয়ের কোন অবকাশ নেই। খাবার ভালো রাখতে ফ্রিজের কম্প্রেসার সর্বক্ষণ চালু রাখা ভালো।

নন-ফ্রস্ট ফ্রিজের উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য সমূহ –

  • বরফ না জমার ফলে খাবার ডিপে রাখলে খুব দ্রুত জমে যাওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই।
  • বিদ্যুৎ চলে গেলেও ১-২ ঘণ্টা খাবার ভালো থাকবে।
  • নন-ফ্রস্ট ফ্রিজের বিদ্যুৎ খরচ কিছুটা বেশি।

*রেফ্রিজারেটর ব্যবহারের টুকিটাকি*

দৈনন্দিন জীবনের অপরিহার্য এই যন্ত্রটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু সুনির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চললে পরিবারের সদস্যদের সুস্থতা যেমন নিশ্চিত করা যাবে, পাশাপাশি ফ্রিজের পরিচ্ছন্নতার কাজও অনেকটা সহজ হয়ে যাবেঃ
 
  • ফলমূল কিংবা শাকসবজি যদি ভালো ভাবে পরিষ্কার করে ফ্রিজে রাখা যায়, তাহলে ফ্রিজের অতিরিক্ত গন্ধ থেকে সহজেই রেহাই পাওয়া সম্ভব হবে। তবে প্রকৃত স্বাদ পেতে ফল বা তরকারি ডিপ ফ্রিজে না রাখাই ভাল।
  • ভেজিটেবল বক্সে সবজি যেকোন প্লাস্টিকের প্যাকেটে মুখ বন্ধ করে রাখতে পারেন। এছাড়া ধনেপাতা, পুদিনাপাতা, লেটুস পাতার গোড়া কেটে ফ্রিজে রাখাই ভালো। আর শাক-সবজির বাড়তি অংশ ফেলে ফ্রিজে রাখলে শাকসবজি অনেকাংশেই তাজা থাকবে।
  • কোন খাবার ফ্রিজে রেখে বারবার গরম ও ঠান্ডা করলে ব্যাকটেরিয়ার ঝুঁকি বাড়ে। তাই যেকোন খাবার একবারে গরম করে খেয়ে নেওয়াই ভাল।
  • মাছ ও মাংস রেফ্রিজারেটরে রাখার ক্ষেত্রে চর্বি ও বাড়তি ময়লা ফেলে সংরক্ষণ করাই ভালো। এতে প্রতিদিনের ঝামেলা অনেকাংশেই কমে যাবে।
  • ফ্রিজে যেকোন প্রসেস করা খাবার খোলা না রাখাই ভালো। এতে খাবারের গন্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশংকা কম থাকে। এছাড়া অতিরিক্ত গরম খাবার স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এনে ফ্রিজে রাখলে খাবার নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

অত্যধিক গরমে খাবার ভালো রাখতে এখন চোখ রাখতে পারেন দারাজে, তবে চরম গরমে অস্থির স্বস্তি পেতে এসি কিনতে পারেন দারাজের এসি কালেকশন থেকে।

বাংলাদেশে ফ্রিজের দাম বর্তমানে আর আকাশচুম্বি অবস্থানে নেই। সেই সুবাদে দারাজেও এখন রেফ্রিজারেটর এর দাম ক্রেতাদের ধরাছোঁয়ার মধ্যেই আছে। তাই দারাজে ফ্রিজ এর দাম যেহেতু সুলভ পরিসরেই পাচ্ছেন, সেহেতু দারাজ থেকে ফ্রিজ কিনতে চাইলে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফ্রিজ এর ছবি দেখে ভালো ফ্রিজ এখন সাধ্যের মধ্যেই সংগ্রহ করতে পারেন। এখন অনলাইনে অনেক সহজেই রেফ্রিজারেটর ব্যবহারের নিয়মাবলী খুব সহজেই দেখে নিতে পারবেন। এছাড়া ব্লগ পোস্টটি থেকে ফ্রিজ ব্যবহারের নিয়ম সমূহ বিস্তৃত পরিসরে জেনে নিতে পারেন।
 
এছাড়া দারাজে ভিজিট করে সিঙ্গার ফ্রিজের দাম ২০২৪ বা কিস্তিতে ওয়ালটন ফ্রিজের দাম ২০২৪ সাল অনুযায়ী কিনতে পারবেন। বিভিন্ন সেরা ব্র্যান্ডের ফ্রিজের দাম ছাড়াও দেখে নিতে পারবেন সেরা সব ডাইনিং টেবিলের ডিজাইন এবং কাঠের সোফার ডিজাইন সহ জুতার ডিজাইন ছেলেদের 2024 সালের ট্রেন্ড অনুযায়ী, যার ফলে এখন কেনাকাটা হবে আরো সহজ, নিরাপদ ও দ্রুত।
 
 
Spread the love

সহজ কিস্তিতে (ইএমআই) মোটর সাইকেল কিনুন দারাজ থেকে (২০২৪)! 70 37620

Last updated on জানুয়ারি 30th, 2024 at 11:33 পূর্বাহ্ন

সকাল-সন্ধ্যা ট্র্যাফিক জ্যামে বসে থাকতে থাকতে হাঁপিয়ে উঠেছেন? অনেকদিন ধরেই মনে মনে একটা মোটর সাইকেলের চাহিদা অনুভব করছেন, কিন্তু বাজেটের কথা ভেবে খুব একটা সুবিধা করতে পারছেন না? অথচ প্রতিদিন অনেকগুলো টাকা হাতের ফাঁক গলে রিকশা ও বাস ভাড়া বাবদ বেরিয়ে যাচ্ছে? যদি এর কোন একটি আপনার সাথে মিলে যায়, তবে হয়ত এই পোস্টটি নিশ্চিতভাবেই আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

আপনি যদি ঢাকা শহরে বসবাস করেন আর মোটর সাইকেল চালানোর নিয়ম জানেন, তবে যাতায়াতের জন্য একটা মোটর সাইকেলের প্রয়োজনীয়তা আপনার থেকে ভালো আর কেইবা বুঝতে পারবে। প্রতিদিনের অফিস যাওয়ার দুর্ভোগ কমাতে মোটর সাইকেল হতে পারে আপনার বিশ্বস্ত সঙ্গী। সেইসাথে দৈনন্দিন পরিবহণ খরচ কমাতেও এর জুড়ি নেই।

tvs raider 125 motorcycle black and yellow bike

এছাড়া জরুরি প্রয়োজন বা একেবারে নিজের একটা বাহন থাকার মতো সুবিধা তো থাকছেই। এত এত সব সুবিধা সত্ত্বেও বাইক কেনার ব্যাপারে আমাদের সহজে সিদ্ধান্ত নিতে না পারার প্রধান কারন মোটর সাইকেলের দামমোটর সাইকেল কিনতে চাইলে বেশ ভালো পরিমাণের অর্থ প্রয়োজন হয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এত টাকা একসঙ্গে জোগাড় করাটা একজন মধ্যবিত্তের পক্ষে বেশ কষ্টসাধ্য। কিন্তু তাই বলে একবারে নিজের একটা মোটর সাইকেলের স্বপ্নটা অপূর্ণ রয়ে যাবে? 

কেন দারাজ থেকে মোটর সাইকেল কিনবেন?

আপনার স্বপ্নপূরন করতে বাংলাদেশের বৃহত্তম অনলাইন শপ দারাজ নিয়ে এলো ০% ইন্টারেস্টে দারুণ ইএমআই সুবিধা। এর ফলে আপনি সাধ্য নিয়ে খুব বেশি দুশ্চিন্তা না করেই সহজ কিস্তিতে সাধের মোটর সাইকেলটি কিনতে পারেন।

দারাজের এই ইএমআই সুবিধাটি পাওয়া এখন খুবই সহজসাধ্য একটা ব্যাপার। আর ০% ইন্টারেস্টের কারনে মাসিক কিস্তিতে মোটর সাইকেল এর মূল মূল্যের বাইরে কোনো রূপ বাড়তি টাকাও আপনাকে গুনতে হবে না। এছাড়া বিশ্বের সবচেয়ে বড় অনলাইন মোটরসাইকেল দোকানে বিশাল সব ডিসকাউন্ট ও ভাউচারের মাধ্যমে এখন নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল পণ্যের সাথে সাথে মোটরসাইকেলও কিনতে পারবেন অবিশ্বাস্য কম দামে। 

bike-buy-now-daraz.com.bd

কিন্তু এটুকু পড়েই যদি আপনি ভেবে থাকেন যে, সব সমস্যার সমাধান হয়ে গেল, তো বিশাল ভুল করলেন। কারন এবার আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে নিজের পছন্দের মোটর সাইকেলটি। বাজেট অনুসারে শুধু পারফরম্যান্স, স্পিড, হ্যান্ডলিং, মাইলেজ, ইঞ্জিন; শুধু এগুলোই মানানসই হলে হবে না, বরং দেখতেও হতে হবে স্টাইলিশ।

সবমিলিয়ে একটা কম দামে ভালো মোটর সাইকেল খুঁজে বের করাটাও যথেষ্ট ঝক্কির কাজ। কিন্তু এটা অনেকটাই সহজ হয়ে আসতে পারে যদি আপনি নামী কোনো ব্র্যান্ড থেকে দেখেশুনে একটা ভাল মোটর সাইকেল বেছে নেন।

কিস্তিতে মোটরসাইকেল মূল্যতালিকা দেখে নেওয়া যাক একনজরে

মোটর সাইকেল ক্রয় বিক্রয় এর জন্য এখন অনলাইনই হতে পারে আপনার সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য স্থান। দারাজের অনলাইন শপে রয়েছে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মোটর সাইকেলের সর্বোচ্চ কালেকশন। হোন্ডা, ভেসপা, সুজুকি, টিভিএস মোটরসাইকেল, ওয়ালটন, অ্যাপ্রিলিয়া, কিওয়েসহ আরো সব নামকরা ব্র্যান্ডের মোটর সাইকেল পাওয়া যাবে কিস্তিতে। পছন্দের ব্র্যান্ড থেকে তাই সহজেই খুঁজে নিতে পারেন আপনার কাঙ্ক্ষিত বাইকটি।

এছাড়া এখানে আপনি পাবেন মোটর সাইকেল এর দাম অনুযায়ী ভালো বাইক এর মূল্য তালিকা, যেখানে মোটর সাইকেল ছবি ও মূল্যের সাথে তাদের স্পেসিফিকেশন সম্পর্কেও জানতে পারবেন।  পারফর্ম্যান্স ভেদে সর্বনিম্ন ৮০,০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৩,০০,০০০ টাকা পর্যন্ত মূল্যের মোটর সাইকেল রয়েছে এখানে। সাথে সুবিধাজনক প্রাইস রেঞ্জ ব্যবহার করে নিজের কাঙ্ক্ষিত মোটর সাইকেল ও বাই সাইকেল খুঁজে পেতে পারেন সহজেই।

ব্র্যান্ডের নামমডেলের নামমূল্যতালিকাদারাজে কিস্তিতে পাব?
বাজাজ বাইকএভেঞ্জার এবিএস ১৬০ সিসি৳ ,২,৭৪,০০০হ্যাঁ
হোন্ডা মোটরসাইকেলহরনেট ১৬২.৭১ সিসি৳ ১,৫০,০০০হ্যাঁ
হিরো মটর সাইকেলহাঙ্ক প্যানথার ১৫০ সিসি৳ ১,৭৫,০০০হ্যাঁ
টিভিএস মোটরসাইকেলএপাচি আর টি আর ১৬০ সিসি৳ ১,৯৪,৯৯৯হ্যাঁ
ইয়ামাহা মটরসাইকেলএফ জেট এস ভার্সন ৩৳ ১,২৫,০০০হ্যাঁ
হিরো মটর সাইকেলহিরো গ্লামার বিএস ৪ ১২৫ সিসি৳ ১,৪০,০০০হ্যাঁ
জিপিএক্স ডেমন মটর সাইকেলক্যাফে রেসার ১৬৫ সিসি৳ ২,০৪,৯৯৯হ্যাঁ
জিপিএক্স মটর সাইকেলএফকেএম স্ট্রিট ফাইটার ১৬৫ সিসি৳ ১,৮৯,৯০০হ্যাঁ

এভেঞ্জার এবিএস ১৬০ সিসি

এভেঞ্জার এবিএস ১৬০ সিসি

হরনেট ১৬২.৭১ সিসি

হরনেট ১৬২.৭১ সিসি

হাঙ্ক প্যানথার ১৫০ সিসি

হাঙ্ক প্যানথার ১৫০ সিসি

এপাচি আর টি আর ১৬০ সিসি

apache rtr

এফ জেট এস ভার্সন ৩

এফ জেট এস ভার্সন ৩

হিরো গ্লামার বিএস ৪ ১২৫ সিসি

হিরো গ্লামার বিএস ৪ ১২৫ সিসি

ক্যাফে রেসার ১৬৫ সিসি

ক্যাফে রেসার ১৬৫ সিসি

এফকেএম স্ট্রিট ফাইটার ১৬৫ সিসি

এফকেএম স্ট্রিট ফাইটার ১৬৫ সিসি

এছাড়া দারাজে পাবেন বাইকের বিভিন্ন এক্সেসরিজ যেমন – হেলমেট, মাডগার্ড, মোটর সাইকেল চুরি প্রতিরোধী ডিস্ক লক, মোটর সাইকেল হ্যান্ডলারসহ আরো অনেক দরকারী উপকরণ।

Popular Bikes: Bajaj Discover 110 | Bajaj Discover 125 | Bajaj Pulsar 150 | TVS Metro | TVS Hunk | TVS Apache RTR 160

Popular Bicycle: Phoenix Tornado Cycle | Veloce Warrior 2.0

Spread the love