December 10, 2022 3:01 PM Saturday
Safety Tips for Women

3 Self-Defense Tips That Make You A Stronger Woman

The world is not a safe place, especially for our women. Every day, women from all around the world have to go through unimaginable situations that reassert it’s not safe for women. But hiding from reality will get us nowhere. We’ve to take our safety into our own hands and do what we can to stay safe – because if we don’t, nobody will.

Let us all come together and vow to protect our women in every way possible. Let us never turn a blind eye and a deaf ear to a woman in trouble. In fact, let us never ignore when any person is seemingly in trouble, man or woman!

With International Women’s Day approaching, let’s look at some of the most critical self-defense tactics for females that you may use to protect yourself in any situation.

1. Self Defense Training

One of the first things that every female should know are some basic self defense moves. Self defense training can give you the confidence to try and overpower if, God forbid, you’re ever assaulted.

You should start with memorizing the vulnerable spots:

Self defense tips for women to use in dangerous situations

Once you have memorized these sensitive spots, you can try and focus your strength at them to overpower the attacker. The most effective and simple self-defense techniques are:

  • Grab the wrist: Grab the ring finger and pinky finger with one hand, and use the other hand to grab the middle and index finger. Then bend the wrist forward and this will make any giant person squirm in pain!
  • Hit between collar bones or into Adam’s apple: Use your fingers or fist to do this and you’ll be able to disorient the attacker. This should give you enough time to escape before they come back to sense.
  • Aim for the groin: This one is obvious. It’ll paralyze the attacker, giving you enough time to run.
  • Hit the Nose: If you were attacked from the front, use your fists to create some room in between and then hit the nose of the attacker with your forehead. Then using your knee, hit him in the groin!

Self Defence Scarlett GIF by Nashville on CMT - Find & Share on GIPHY

2. Keep a Pepper Spray on You

A pepper spray will come in very handy in a situation like this. Every woman should keep pepper spray in their purses so that, God forbid in case of such a situation, they can spray the attacker with it to defend themselves. The pepper spray price in Bangladesh is very reasonable, so you don’t have to worry about having to spend a fortune on it!

3. Use ‘SOS’ Feature on Phone to Alert Others

Most people don’t know that they can activate an SOS feature on their phones that they can use to alert others in case they’re in trouble.

Here’s how you activate on Android:

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

And here’s how you can activate on iPhone

  1. Settings
  2. Emergency SOS
  3. Turn it on
  4. Add trusted contacts

The phone activation of SOS lets you send an SOS message in emergency. In most phones, you have to press the power button multiple times to activate the feature. Every phone specifies on their feature page about how many times you’ll have to tap.

SOS 4 Self defence for women-daraz.com.bdSOS 3 Self defence for women-daraz.com.bd

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

When you tap this feature to activate it, it’ll automatically send your location to your chosen contacts. As you can see, it can also share audio and pictures.

Self-defense training for women is very important. Women should take self-defense classes or at least equip themselves with some handy moves that they can use should the need arise (God forbid!). Other tips that we’ve mentioned above, especially the SOS feature, can be really helpful!

You can check women’s survival kits, security tools and self-defense equipment in daraz online shop at the best price. Order and enjoy the fastest home delivery in Bangladesh.

Lastly, we’d just like to say to always be alert and careful – after all, in a world like this, you can never be too careful!

You may also like-
7 Top Tips Before Buying Microwave Ovens

shop online to avoid health risks

করোনাকালে স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে ভরসা অনলাইন কেনাকাটা (২০২২)

সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও করোনা অতিমারির ঢেউ আছড়ে পড়েছে। সংক্রমণের হার যেন ধরাছোঁয়ার বাইরে, হু হু করে বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। বিগত এক বছরে মানুষের জীবনযাত্রা সম্পূর্ণভাবে বদলে দিয়েছে করোনার বৈশ্বিক মহামারি। বাজারে যাওয়ার মতো সাধারণ কাজটি করতেও মানুষকে এখন ভাবতে হচ্ছে। সংক্রমণের ভয়ে মানুষ বেশিরভাগ সময় নিজেদের ঘরে অবস্থান করছে। তবে, করোনা হানা দেয়ার পর থেকে ঘরবন্দি মানুষের চলাফেরা বেড়েছে অনলাইনে। আগে যেখানে মানুষ কালেভদ্রে অনলাইনে বাজার করতো, এখন স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে মানুষ দৈনন্দিন বাজারসদাই হতে শুরু করে সবরকম কেনাকাটার জন্য ভরসা করছে অনলাইন প্লাটফর্মগুলোর উপর। দেশের সর্ববৃহৎ অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ করোনার ঢেউ মোকাবিলায় ইতোমধ্যে প্রস্তুত হয়েছে এবং মানুষ যাতে সহজে ও নিশ্চিন্তে প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী কিনতে পারে সেই লক্ষ্যে গ্রহণ করেছে বিভিন্ন পদক্ষেপ।

তবে এখানে প্রশ্ন উঠতে পারে যে, এ সময় অনলাইন কেনাকাটা কি সম্পূর্ণ নিরাপদ? স্বস্তির বিষয় হচ্ছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনলাইন কেনাকাটা একইসাথে সহজ এবং নিরাপদ। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস থেকে শুরু করে অর্ডারকৃত যেকোন পণ্য স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে গ্রাহকদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছে দারাজ। দারাজে পণ্য অর্ডার করলে স্বল্প সময়ের মধ্যে মাস্ক এবং গ্লাভস পরিহিত দারাজ ডেলিভারি এজেন্ট হাজির হয়ে যাবে পণ্য হাতে। প্রতিষ্ঠানের নির্দেশ অনুযায়ী গ্রাহকের বাড়ির দরজায় জীবাণুমুক্ত করা হবে ডেলিভারি প্যাকেজটি। ফলে, প্যাকেট থেকে ভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনা অনেকাংশেই দূর হবে। এছাড়া, প্যাকেট ছাড়াও টাকার মাধ্যমে ঘরে ঢুকে যেতে পারে প্রাণঘাতী ভাইরাসটি। গ্রাহকদের এমন দুশ্চিন্তা দূর করতে দারাজের রয়েছে স্পর্শহীন ডেলিভারি এবং মূল্য পরিশোধের ব্যবস্থা। অর্থাৎ, গ্রাহকরা চাইলে অনলাইনে মূল্য পরিশোধ করতে পারবে।

অনলাইনে অর্ডারকৃত পণ্য যারা ডেলিভারি দিয়ে থাকেন, তারা সহজে সংক্রমিত হতে পারেন বলে প্রথমে তাদের সুরক্ষা নিশ্চিত করা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। কর্মীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে প্রয়োজনীয় সকল প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে দারাজ। প্রতিটি দারাজ ডেক্সে রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণে মাস্ক, গ্লাভস এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার। রাইডাররা ডেলিভারি দিতে বের হলে তারা ঠিকমত মাস্ক ও গ্লাভস পড়ছে কিনা এবং স্যানিটাইজার সাথে আছে কিনা সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখছে দারাজ। মাস্ক না পড়লে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না দারাজের ওয়্যারহাউজ, হাব ও অফিসের ভেতর। প্রবেশের দরজায় স্থাপন করা হয়েছে ডিসইনফেকশন বুথ, আর প্রবেশের পূর্বে মাপা হচ্ছে শরীরের তাপমাত্রা।

এছাড়া, দারাজের সকল ওয়্যারহাউজ, হাব ও অফিসে কঠোরভাবে মানা হচ্ছে ছয় ফিট শারীরিক দূরত্ব। দারাজের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে বিভিন্ন শিফটে ৫০ শতাংশ জনবল নিয়ে। দুই ঘন্টা পর পর সম্পূর্ণ অফিস পরিষ্কার করা হচ্ছে যাতে করোনা ভাইরাস মেঝে ও আসবাবে থাকতে না পারে এবং সবাইকে ঘন ঘন হাত ধুতে উৎসাহিত করা হচ্ছে। হাত পরিষ্কারের সুবিদার্থে প্রতিটি ফ্লোরের প্রবেশ গেইটে রাখা হয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ডিসপেন্সার। প্রত্যেক দলের প্রধান দলের সদস্যদের স্বাস্থ্যাবস্থা প্রতিনিয়ত পর্যবেক্ষণ করছেন এবং কারও মধ্যে কোভিডের সামান্যতম উপসর্গ দেখা দিলেও দ্রুততার সাথে পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি কর্মীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বাড়ি বসে কাজ করার ব্যবস্থাও করেছে।

ঘরে থাকুন, নিরাপদে থাকুন, ডেলিভারি করছে দারাজ- এই মন্ত্রে সঙ্কটকালীন সময় সারা দেশে পণ্য ডেলিভারি করছে দারাজ। অনলাইন কেনাকাটায় স্বাস্থ্যসুরক্ষা নিশ্চিত করতে দারাজের উদ্যোগসমূহ যথেষ্ট সময় উপযোগী এবং কার্যকর। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়মাবলী অনুসারে স্বাস্থ্যঝুঁকি হ্রাসে যা যা করা প্রয়োজন সব নিয়ম মেনে দক্ষতার সাথে সকল কাজ পরিচালনা করছে দারাজ। তাই, আপনার প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি নিশ্চিন্তে অর্ডার করতে বেছে নিতে পারেন দারাজ প্ল্যাটফর্মকে।

order online to stay safe

Shop Online and Avoid Health Risk During Covid Epidemic

As expected by many, an increase of COVID-19 cases is observed all over the globe and Bangladesh is no exception. As the overall situation in the country worsened rapidly, the government is forced to announce a new lockdown to control the condition in Corona.

In this Corona epidemic, COVID’19 disease has become stronger than before. The number of people infected by Corona and dying this year is not less than last year. So there is no alternate for self-care.

Let’s take a look at what to do in the second stream of Corona and life in the lockdown:

Why Bangladeshi Netizens Should Stay Home

  • By staying home, you are not exposed to others who may be coronavirus carriers outside of the home.
  • The fewer people you’re around, the less likely you are to be infected by coronavirus.
  • You are actually protecting your family members by staying home and out of the public during the COVID-19 crisis.
  • Social distancing can make it harder for the virus to spread. This will help us all to be safe.

How You Can Be Safe During the Covid Epidemic

  • Use home delivery from online shopping platforms like Daraz Bangladesh for medication, groceries, and daily needs.
  • If you need to go out in public places, maintain social distancing from others and cover your mouth and nose with an appropriate mask.
  • If it is possible, work from home.
  • Avoid using any kind of public transportation, taxis, or ridesharing as much as probable.
  • Wash your hands properly when you are outside.
  • Don’t touch your face and mouth with your hand. Otherwise, you will be affected easily.

Why Trusting Daraz Online Shop During Covid Epidemic

As online shopping can be your best friend in this lockdown, you can trust Daraz for safer and reliable home delivery. 

  • Daraz product packaging is being done with maximum care with hygiene and sanitation.
  • Cleaning the entire facilities at 2-hour intervals
  • Most employees work from home. Daraz is carrying out operations in shifts with 50% HR capacity.
  • Disinfection-booth at the entrance of the office/hub for measuring employees’ temperatures and maintaining consistent social distance by 6 feet.
  • Employees who are coming to the office, or riders who are taking deliveries – their health condition is checked first and only then they are allowed to make deliveries. disinfection-booth at the entrance of the facilities; 
  • All employees involved in delivery are using the best safety equipment to ensure proper safety.
  • Every package is instructed to be delivered to the customer’s doorstep so that a germ-free delivery is confirmed
  • Daraz riders are also trained and monitored to maintain proper protective equipment while on the roads and completing deliveries
  • You can pay online which is a quite safer method in this pandemic situation. Daraz is also encouraging touchless delivery and touchless transaction among the customers for their protection.

Therefore when your and your family’s safety is the prior issue, Daraz online shopping can be your best companion in terms of affordable price and safety measurement. And we’re trying our best to ensure the most dependable online service to our customers in this pandemic situation.

Stay home, let us deliver.

stay safe from diabetes during covid

নভেল করোনা থেকে ডায়াবেটিস রোগীদের বাচার সহজ উপায়

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যারা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের বেশির ভাগই দীর্ঘমেয়াদী রোগ যেমন- ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগসহ ফুসফুসের অসুখ ইত্যাদি সমস্যায় ভুগছিলেন। বিশেষজ্ঞদের মতেও, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে কোভিড-১৯ এর ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় বেশি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সমীক্ষা অনুযায়ী, ২০১৪ সালের তথ্য অনুসারে পৃথিবীতে ডায়াবেটিসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪২২ মিলিয়নেরও বেশি। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ২০১৯ সালে সারা পৃথিবীতে ২৩ কোটি ২০ লাখ ডায়াবেটিস রোগী রয়েছেন।

নিউইয়র্ক পোস্টের এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে, করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে বেশি ভর্তি হয়েছেন ডায়াবেটিস, ফুসফুস এবং হৃদরোগের মতো দীর্ঘস্থায়ী রোগীরা। এমনকি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকা পাঁচজনের মধ্যে অন্তত একজন এসব দীর্ঘমেয়াদী রোগে আক্রান্ত। রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রসমূহের সর্বশেষ প্রতিবেদনেও উঠে এসেছে এমন তথ্য।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)’র রিপোর্ট অনুসারে, করোনায় আক্রান্ত ৭ হাজার ১৬২ জনের মধ্যে ৩৭ দশমিক ৬ শতাংশই কোনো না কোনো দীর্ঘমেয়াদী রোগে ভুগছিলেন।

আর রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকা ৭৮ শতাংশ করোনা রোগীর মধ্যে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ছিলেন ৩২ শতাংশ, হৃদরোগে ২৯ শতাংশ, ফুসফুসের দীর্ঘস্থায়ী রোগে ২১ শতাংশ আর ১২ শতাংশেরও বেশি রোগী কিডনি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। অন্যদিকে মাত্র ৯ শতাংশ রোগীর মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত ছিল।

কেন ডায়াবেটিসে আক্রান্তরা বেশি ঝুঁকিতে?

বিশেষজ্ঞদের মতে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। এর ফলে যে কোনো সংক্রমণের আশঙ্কা দ্বিগুণ বেড়ে যায়। এমনকি করোনার ঝুঁকিও।

এ সময় যা করা উচিত

  1.  দিনে অন্তত ৫ থেকে ৬ বার, কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড ধরে হাত ধুতে হবে। স্যানিটাইজারের চেয়ে সাবান উত্তম।
  2.  রান্না, পরিবেশন ও খাওয়ার আগে হাত ভালো করে ধুয়ে নিন। নিজের ব্যবহৃত বাসনপত্র এমনকি কাপড়ও আলাদা করতে হবে।
  3.  পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যকর খাবার যেমন- শাক, সবজি, ফল, মুরগির মাংস, মাছ, ডিম, ব্রাউন রাইস, হোল গ্রেন বা মাল্টি গ্রেন আটা ইত্যাদি খেতে হবে।
  4.  এ সময় হাতের কাছে মিষ্টিজাতীয় খাবার রাখতেও ভুলবেন না যেন! যদি হঠাৎ ডায়াবেটিস খুব কমে যায়, তখন কাজে আসবে।
  5.  প্রয়োজনীয় ওষুধ ও ইনসুলিন পর্যাপ্ত কিনে রাখুন। মেশিনে সুগার মাপার স্ট্রিপও কিনে রাখুন। এতে করে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

তথ্যসূত্র: আল জাজিরা

করোনা সচেতনতা নিয়ে আরও পড়ুনঃ

tips to get relief from covid

গুরুত্বপূর্ণ ৫ টি টিপস – করোনা থেকে নিরাপদ থাকার প্রস্তুতি

করোনাভাইরাস দিনকে দিন বিশ্বে ভয়ংকর রূপ নিচ্ছে। এ রোগের কারণে একে একে মৃত্যুর দুয়ারে গেছেন ১১ হাজারের বেশি মানুষ। মহামারি এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই। দেখা যাচ্ছে, এ রোগে দ্রুত আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধদের মধ্যেই বেশি। চীন থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বৃদ্ধদের, বিশেষ করে যাঁরা দীর্ঘস্থায়ী চিকিৎসা নিচ্ছেন, তাঁদের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। এরই মধ্যে করোনায় সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন বয়স্ক ব্যক্তিরাই।

সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের অনেক দেশেই বলা হয়েছে, ৬০ বছর বা তার বেশি বয়সের ব্যক্তিরা, যাঁদের দৈহিক বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে, তাঁরা যেন জনসমাগম এলাকা এড়িয়ে চলেন। তাঁরা যেন বাড়িতে থাকেন। বয়স্কদের সাবধানে কীভাবে রাখবেন, এর জন্য কয়েকটি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে WHO এর পক্ষ থেকেঃ

০১। ওষুধ ও প্রয়োজনীয় জিনিস মজুদ রাখা

দরকারি ওষুধ ও প্রয়োজনীয় জিনিস আগে থেকে কিনে বাসায় রাখতে হবে। বাসার বৃদ্ধরা দুর্বল ও দীর্ঘদিন অসুস্থ হলে আমেরিকার সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) সুপারিশ করেছে, বেশ কিছু সপ্তাহের ওষুধ ও অন্যান্য জিনিস বাড়িতেই যেন রাখা হয়। সিডিসি তাদের নাগরিকদের বলেছে, প্রয়োজনীয় খাদ্য, ওষুধ এবং অন্যান্য চিকিৎসা পণ্যের সরবরাহগুলো আগে থেকে মজুত করে রাখুন। প্রিয়জনদের কী কী ওষুধ প্রয়োজন, তার খেয়াল পরিবার যেন রাখে। বাসার বয়স্কদের দিকে একটু সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিন।

০২। পরিষ্কার–পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখুন

পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। ২০ সেকেন্ড ধরে নিজেদের হাত সাবান–পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই পরামর্শ করোনাভাইরাস সচেতনতার জন্য সবাই দিচ্ছেন। যদি হ্যান্ডওয়াশ-পানি না থাকে, সে ক্ষেত্রে স্যানিটাইজার দিয়েও হাত ভালোভাবে ঘষে নিতে হবে। বাড়ি ও কর্মক্ষেত্রের জায়গাও যেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে, এ বিষয়ে নিশ্চিত থাকতে হবে। নিয়মিত বাড়ি ও কাজের জায়গা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করুন। এমনকি ইলেকট্রনিকসের জিনিসগুলোও নিয়মিত পরিষ্কার করুন।

০৩। কোনো জিনিস শেয়ার নয়

যৌথ পরিবারে সবাই একসঙ্গে থাকেন। একেকজনের ঝুঁকি একেক ধরনের হতে পারে। এ রকম অবস্থায় সবারই ঝুঁকি রয়েছে বলেই ধরে নিতে হবে। একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো, একই পরিবারে বৃদ্ধ ও শিশুরা থাকে। তাদের এই সময়ে বা মাঝেমধ্যে সর্দি-কাশি হয়। সে ক্ষেত্রে পরিবারের উচিত ব্যক্তিগত সব জিনিস এই মুহূর্তে আলাদা ব্যবহার করা। যেমন খাবার, পানির বোতল, বাসন-কোসন। প্রয়োজন হলে বাড়ির একটি আলাদা ঘরে অসুস্থ সদস্যকে রেখে দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে আলাদা শৌচাগারের ব্যবস্থাও করলে আরও ভালো হয়।

অনেক বৃদ্ধই আছেন, যাঁরা একা একা থাকেন। সে ক্ষেত্রে কীভাবে তাঁরা নিজেদের যত্ন নেবেন, সে বিষয়ে আগে থেকে পরিকল্পনা করে নিতে হবে। ফোন বা ই–মেইল কীভাবে ব্যবহার করবেন, জরুরি ফোন নম্বর, চিকিৎসকের নম্বর সব যেন হাতের কাছে থাকে।

০৪। আতঙ্ক নয়, আলোচনা করুন

অযথা আতঙ্কিত না হয়ে কোভিড-১৯ সম্পর্কে প্রতিবেশী, পরিবার-স্বজনদের সঙ্গে নিয়ে আলোচনা করতে হবে। কেউ আক্রান্ত হলে আগাম প্রস্তুতি কী হবে, তা নিয়ে পরিকল্পনা করে রাখুন। কোভিড-১৯ সম্পর্কে যতটা সম্ভব সচেতনতা বাড়াতে হবে, বিশেষ করে বয়স্কদের ক্ষেত্রে এটা আরও প্রয়োজন। তাঁরা যাতে কোনোভাবেই বাড়ির বাইরে না বের হন, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। বৃদ্ধদের আশ্বস্ত করুন যে এ রোগে ভয়ের কিছু নেই।

০৫। চিকিৎসকদের পরামর্শ মানুন

করোনা নিয়ে আতঙ্ক না বাড়িয়ে চিকিৎসক-বিশেষজ্ঞদের নির্দেশ মেনে চলাই শ্রেয়। কিছুদিন বৃদ্ধদের বাড়ির বাইরে বের হতে না দিয়ে বাড়িতেই রাখতে হবে। বিভিন্ন ধরনের ফিট থাকার শরীরচর্চা এই সময় তাঁরা করতে পারেন। স্বাস্থ্যকর খাবার এ সময় খুব প্রয়োজন। সর্দি-কাশি হলে তা এড়িয়ে না গিয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

করোনার ভয়ে বিশ্ববাসী রীতিমতো একঘরে হয়ে রয়েছেন। বিশ্বের অনেক দেশ তাদের শহরগুলো লকডাউন করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) নিজেদের ওয়েবসাইটে কোভিড-১৯ নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছে প্রতিনিয়ত। সেখানে এ রোগের বিষয়ে সব তথ্য পাওয়া যাচ্ছে।

তথ্যসূত্র: নিউইয়র্ক টাইমস, সিএনএন

করোনা সচেতনতা নিয়ে আরও পড়ুনঃ

stay safe from corona virus

যে ৫টি কাজ করলে নভেল করোনা থেকে সুস্থ থাকা যাবে

কঠিন এক সময় পার করছে বিশ্ববাসী। নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) হানায় বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। এখন পর্যন্ত শতভাগ কার্যকর প্রতিষেধক আবিষ্কার না হওয়াতে সতর্কতা-সচেতনতাই এই প্রাণঘাতি ভাইরাস থেকে বাঁচার একমাত্র পথ। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই চলছে ধাপে ধাপে লকডাউন। এক দেশের সঙ্গে আর এক দেশের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। অফিস-আদলত বন্ধ থাকলেও স্বল্প পরিসরে কাজ চলছে বাড়ি থেকে।

করোনায় সুস্থ থাকার অতি গুরুত্বপূর্ণ ৫ টি উপায় দেখে নিন একনজরে

০১। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া

সুস্থ থাকার প্রধান উপায় হলো পুষ্টিযুক্ত স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া। এতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বাড়বে এবং ঠিকভাবে কাজ করবে।

০২। মদ্যপান সীমার মধ্যে রাখা

করোনাভাইরাসের এই সময়ে সুস্থ থাকতে হলে মদ্যপানে দায়িত্বশীল হতে হবে। সীমার বাইরে পান করা উচিৎ নয়। চিনিযুক্ত পানীয় পরিহার করতে হবে।

০৩। ধূমপান করা যাবে না

সুস্থ থাকতে হলে ধূমপান করা যাবে না। কোভিড ১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হলে ধূমপানের কারণে মারাত্মক রোগগুলো বৃদ্ধি পায়।

০৪। শারীরিক কসরত করা

সুস্থ থাকার জন্য শারীরিক কসরত করার কোনো বিকল্প নেই। যদি বাইরে যাওয়ার অনুমতি থাকে তাহলে প্রাপ্ত বয়স্ককে ৩০ মিনিট ও শিশুদের ১ ঘণ্টা দৌড়াতে হবে। আর নাহয় বাসায়ই বিভিন্ন ব্যায়াম-ইয়োগা করা যেতে পারে। অফিসের কাজ বাসায় করলে এক পজিশনে না করা। ৩০ মিনিট পরপর তিন মিনিটের বিরতি নেওয়া।

০৫। মানসিক স্বাস্থ্যের দিকে নজর দেওয়া

মহামারির এই সময়ে মানসিকভাবে শক্ত থাকা খুবই জরুরি। এই সময়ে মানসিক অশান্তি থাকা, চাপ অনুভব করাটা স্বাভাবিক। পরিচিত ও বিশ্বস্তজনের সঙ্গে কথা বলে মানসিক অশান্তি থেকে দূরে থাকা যেতে পারে। কমিউনিটির অন্য মানুষদেরকে সাধ্য অনুযায়ী সহোযোগিতা করা। প্রতিবেশি, বন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের খোঁজখবর রাখা। গান শোনা, বই পড়া ও গেম খেলা যাতে পারে। যদি সমস্যা হয় তাহলে সংবাদ দেখা থেকে দূরে থাকা। দিনে একবার কিংবা দুইবার নির্ভযোগ্য গণমাধ্যম থেকে দেশ-বিদেশের খোঁজ-খবর নিলেই হবে।

করোনা নিয়ে আরও জানুনঃ

>>করোনার লক্ষণ ও প্রতিকার

xiaomi poco x3 nfc review- daraz life

দারাজ রিভিউ: শাওমি পোকো এক্স৩ এনএফসি

নতুন মোবাইল কেনার কথা ভাবছেন? ঝকঝকে ক্যামেরা, হাইস্পিড র‍্যাম, সুবিধাজনক স্টোরেজ, শক্তিশালী ব্যাটারি- এইসব ফিচার যদি একই সাথে পেতে চান, তবে শাওমি পোকো এক্স৩ এনএফসি (Xiaomi Poco X3 NFC) স্মার্টফোনটি হতে পারে আপনার সেরা পছন্দ। 

ব্র্যান্ড হিসেবে শাওমি ইতিমধ্যেই গ্রাহকদের একটি আস্থার জায়গা দখল করেছে। নিত্যনতুন সেরা ফিচারের স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের হাতে তুলে দিতে শাওমি সবসময়ই অন্যদের থেকে কিছুটা এগিয়ে। এরই ধারাবাহিকতায় শাওমি নিয়ে এলো পোকো এক্স৩ এনএফসি মোবাইল। বাংলাদেশে দারাজে এক্সক্লুসিভ লঞ্চ হওয়া শাওমি পোকো এক্স৩ এনএফসি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ২৪ হাজার ৯৯৯ টাকায়!

শাওমি পোকো এক্স৩ এনএফসি স্পেসিফিকেশন:

  • অপারেটিং সিস্টেম: অ্যান্ড্রয়েড ১০, এমআইইউআই ১২
  • ডিসপ্লে: ৬.৬৭” ১০৮০ x ২৪০০ আইপিএস, ১২০ হার্জ। ২০ঃ৯ এইচডিআর১০
  • র‍্যাম: ৬ জিবি
  • ইন্টারনাল স্টোরেজ: ৬৪/১২৮ জিবি
  • প্রসেসর: স্ন্যাপড্রাগন ৭৩২জি
  • রিয়ার ক্যামেরা: ৬৪, ১৩, ২ ও ২ মেগাপিক্সেল
  • সেলফি ক্যামেরা: ২০ মেগাপিক্সেল
  • ব্যাটারি: ৫১৬০ এমএএইচ
  • চার্জিং: ফাস্ট চার্জিং, ৩০ মিনিটে ৬২%

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপ দারাজে এখন শাওমি পোকো এক্স৩ এনএফসি ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে এক্সক্লুসিভ দামে- মাত্র ২৪,৯৯৯ টাকায়। ক্যাশঅন ডেলিভারি সহ বিভিন্ন ইজি পেমেন্ট মেথডের সাথে থাকছে ১৪ দিনের ইজি রিটার্ন পলিসি ও ১ বছরের অরিজিনাল ব্র্যান্ড ওয়ারেন্টি।

এছাড়া আপনি ভিজিট করতে পারেন দারাজের অফিশিয়াল শাওমি দারাজমল-এ। যেখানে পাবেন পছন্দের ১০০% জেনুইন অফিশিয়াল শাওমি ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন- সময়ের সবচেয়ে সেরা দামে।

daraz fatafati sale campaign

ফাটাফাটি ফ্রাইডে কি? কি বিশেষ অফার থাকছে এই জনপ্রিয় ক্যাম্পেইনে?

টানা ষষ্ঠবারের মত বিশ্বের অন্যতম সেরা অনলাইন শপিং ক্যাম্পেইন ফাটাফাটি ফ্রাইডে সেল নিয়ে হাজির হয়েছে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অনলাইন শপিং ওয়েবসাইট (daraz.com.bd), যা চলবে ২৭ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। উন্নত বিশ্বের ব্ল্যাক ফ্রাইডের আদলে নির্মিত বাংলাদেশের মেগা ক্যাম্পেইন দারাজ ফাটাফাটি ফ্রাইডে (২০২০) ক্যাম্পেইনে প্রায় সকল পণ্যের উপর পাবেন অবিশ্বাস্য মূল্যছাড়!

fatafati friday sale

ফাটাফাটি ফ্রাইডে সম্পর্কে কিছু তথ্য না জানলেই নয়!

ব্ল্যাক ফ্রাইডে মানে কি?

থ্যাঙ্কসগিভিং ডে’র পরেরদিন অর্থাৎ নভেম্বরের শেষ শুক্রবার বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জনসাধারণের কেনাকাটার সুবিধার্থে দারুণ ছাড় দেয়া হয়, যাকে ব্ল্যাক ফ্রাইডে বলা হয়। এই দিনে বিশাল অঙ্কের কেনাবেচা হয় যা প্রায়ই অতীতের শপিং এর রেকর্ডকে ছাড়িয়ে যায়।

দারাজ ফাটাফাটি সেলই কি ব্ল্যাক ফ্রাইডে সেল?

প্রতি বছর নভেম্বরের শেষ শুক্রবার বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আয়োজন করা হয় ব্ল্যাক ফ্রাইডে সেল। একই আদলে বাংলাদেশে দারাজ প্রতিবছর আয়োজন করছে ফাটাফাটি ফ্রাইডে ক্যাম্পেইন, যেখানে থাকে দারুণ মূল্যছাড়, ফ্ল্যাশ সেল ও ডিসকাউন্ট ভাউচারে সাশ্রয়ী দামে সেরা পণ্য কেনার দারুণ সুযোগ। সেই হিসেবে বলা যায় ফাটাফাটি ফ্রাইডে হচ্ছে দারাজের নিজস্ব মেগা সেল ক্যাম্পেইন (ব্ল্যাক ফ্রাইডে সেলের মতো)।

এটাকে কেন ফাটাফাটি ফ্রাইডে বলা হয়?

নভেম্বরের শেষ শুক্রবারে আকর্ষণীয় ডিসকাউন্ট অফার, মেগা ভাউচার – হ্যাপি আওয়ার ভাউচার, দারাজ মল ভাউচার ও কালেক্টিবল ভাউচার এবং সেলার ফ্রী শিপিং সহ বিভিন্ন লাভজনক মেগা ডিল সহ বিভিন্ন দারুণ অফারে শপিং করার সুযোগ থাকায় একে ফাটাফাটি ফ্রাইডে সেল ক্যাম্পেইন বলা হচ্ছে। প্রতি বছর দারাজের গ্রাহকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে ফাটাফাটি ফ্রাইডে।

দারাজের ফাটাফাটি ফ্রাইডে (অন্যান্য স্থানের ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামে পরিচিত) কবে?

দারাজের ফাটাফাটি ফ্রাইডে (দারাজ ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামেও পরিচিত) কবে শুরু হচ্ছে এমন প্রশ্ন যদি আপনার মাথায় আসে তবে এখনি আপনার ক্যালেন্ডারে দাগ দিয়ে রাখতে পারেন; দারাজ ফাটাফাটি ফ্রাইডে (২০২০) ক্যাম্পেইন শুরু হচ্ছে ২৭ নভেম্বর (নভেম্বরের শেষ শুক্রবার) এবং চলবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত।

কি কি স্পেশাল অফার থাকছে ফাটাফাটি ফ্রাইডেতে?

ফাটাফাটি ফ্রাইডে ব্ল্যাক ফ্রাইডের ব্যতিক্রম কিছু না। যে কারণে অনেকেই এটাকে বাংলাদেশের ব্ল্যাক ফ্রাইডে নামেও চিনে থাকেন। দারাজের এই মেগা সেল ক্যাম্পেইনে বিভিন্ন আকর্ষণীয় মেগা ডিল, মেগা ভাউচার, দারাজ মল ভাউচার, হ্যাপি আওয়ার ভাউচার ও বিভিন্ন কালেক্টিবল ডিসকাউন্ট ভাউচার সহ দারুণ সব লোভনীয় অফার থাকে, যার ফলে অসংখ্য গ্রাহক সারা বছর জুড়ে অপেক্ষা করেন দারাজ ফাটাফাটি ফ্রাইডে সেলের জন্য।

আপনি কীভাবে ফাটাফাটি ফ্রাইডে ক্যাম্পেইন থেকে সেরা ডিলটি পেতে পারেন?

ফাটাফাটি ফ্রাইডে উপলক্ষে দারাজের গ্রাহকদের জন্য থাকছে নানা ধরণের আকর্ষণীয় অফার। বিশেষ করে সেলার ফ্রি শিপিং, মেগা ডিল, বিশাল মূল্যছাড়, মেগা ভাউচার, দারাজ মল ভাউচার ও কালেক্টিবল ভাউচার সহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় কুপন কোড ও অসংখ্য লোভনীয় ডিল খুঁজে পেতে পারেন। সেরা ডিলে কেনার জন্য আজই কার্টে নিজের পছন্দের পণ্যগুলো অ্যাড করে রাখতে পারেন। সেই সাথে ক্যাম্পেইনের সেরা সব ডিল সবার আগে জানতে দারাজ অ্যাপে লগ ইন করে রাখুন এখুনি।

ফাটাফাটি ফ্রাইডেতে কি ধরণের ভাউচার পাওয়া যাবে?

দারাজ ফাটাফাটি ফ্রাইডে ক্যাম্পেইনে থাকছে সুলভ মূল্যে স্মার্টফোন, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, ফ্যাশন প্রোডাক্ট, গাড়ী ও মোটরসাইকেল সহ অসংখ্য পণ্য কেনার দারুণ সুযোগ। আরও থাকছে দারাজ অ্যাপের শেক শেক ফিচার- ক্যাম্পেইন চলাকালীন একটি নির্দিষ্ট সময়ে দারাজ অ্যাপ শেক করে জিতে নিতে পারেন অসংখ্য লোভনীয় ভাউচার। ফাটাফাটি ফ্রাইডে সেল ডে-তে একটু বেশি ডিসকাউন্ট অফার উপভোগ করা এখন আরও সহজ। এই ক্যাম্পেইনে সবচেয়ে বড় চমক হিসেবে থাকছে বিভিন্ন ধরণের মেগা ডিল, যে ডিলগুলো ইলেভেন ইলেভেন অনলাইন ফেস্টিভালে আপনার পছন্দের পণ্য কেনাকাটায় দারুণভাবে সহায়তা করবে।

ফাটাফাটি ফ্রাইডে-তে কেনাকাটার পর অর্থ কিভাবে পরিশোধ করতে পারবো?

ক্যাশ অন ডেলিভারির পাশাপাশি আপনি প্রায় সকল প্রচলিত পেমেন্ট পদ্ধতি যেমন বিকাশ, ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারেন। তবে দারাজের সাথে পেমেন্ট পার্টনার ব্যাংকের কার্ডের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করলেই পাচ্ছেন বিশাল অঙ্কের ডিসকাউন্ট ও ক্যাশব্যাক অফার। দারাজ ফাটাফাটি ফ্রাইডে ক্যাম্পেইন উপলক্ষে এই চমৎকার সুযোগ হাতছাড়া করতে না চাইলে কার্ডে টাকা নিয়ে প্রস্তুত থাকুন। হ্যাপি শপিং।

Diapers Buying Guide - daraz.com.bd

Choose The Best Quality Diapers for Your Child 2020

Baby skin is more sensitive as it is more delicate than adults- which needs the most natural care and protection from the risk of skin inflammation. For this, you must pick the right diaper for your newborn’s skin protection. However, choosing diapers may be very confusing, with several brands competing for your attention. You may be tempted to pick up the initial one you see, but keep in mind that it may not be the suitable choice for your little baby’s bottoms. It’s also tough for new parents as they have no prior experience. So, what good diapers in the market should a new parent look for newborn? We’ll tell you.

Let’s have a fresh look at some renowned diaper brands for the best parental experience-

1. NeoCare Diapers

Neocare is a renowned diaper brand in Bangladesh. Whether you want to buy good quality diapers in Bangladesh or have some great diapers in a suitable price range, Neocare diapers can be your choice. It ensures satisfactory protection with exceptional comfort to your baby.NeoCare diapers at best price in BangladeshClick on the image to explore more

2. MamyPoko Diapers

Mamypoko is a leading diaper brand in Bangladesh. With extra absorption power and affordable high quality- MamyPoko diaper can be a smart choice for your newborn baby with a combination of great quality and reasonable price.

MamyPoko diapers at best price in BangladeshClick on the image to explore more

3. Molfix Diapers

Turkey brand Molfix is a renowned diaper brand that can offer some quality diaper products at a moderate price range. Molfix provides customers with different types of products very frequently. You can check them to pick the best one for your baby.

molfix diapers at best price in BangladeshClick on the image to explore more

4. Pampers

Pampers is an American brand of baby and toddler products marketed by Procter & Gamble (P&G). Pampers offers five different kinds of diapers in nine sizes, four kinds of toilet training pants, swim pants, and four kinds of diaper wipes.

Pampers at best price in BangladeshClick on the image to explore more

5. Huggies Diapers

Huggies is one of the leading diaper brands in Bangladesh. If you want 10 hours long term protection of your baby’s skin, Huggies diaper can be your best fit. Huggies has some nice collections of quality diapers with a standard price range.Huggies diapers at best price in BangladeshClick on the image to explore more

If you still have confusion, visit daraz.com.bd to explore the biggest online diaper collection in Bangladesh at a comparatively low price. You can also shop baby clothes online from top brands for the best comfort and protection of your newborn’s skin. 

 

order realme c17 smartphone from daraz.com.bd

রিয়েলমি সি সেভেন্টিন স্মার্টফোন এখন পাওয়া যাবে দারাজ বাংলাদেশে!

রিয়েলমি সি সেভেন্টিন (Realme C17) স্মার্টফোনটি একটি মিড-টিয়ার ডিভাইস, যার ৯০ হার্জেড (90Hz) আলট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, শক্তিশালী ৬ গিগাবাইট র‍্যাম এবং ১২৮ গিগাবাইটের ইন্টারনাল স্টোরেজ ইউজারকে চমৎকার গেমিং অভিজ্ঞতার পাশাপাশি দৈনন্দিন সকল কাজে দেবে অনন্য পারফরমেন্স। অসাধারন দামের পাশাপাশি রিয়েলমি সি সেভেনটিন পাওয়া যাবে লেক গ্রিন ও নেভি ব্লু- এই দুটি রঙে।

অন্যান্য জনপ্রিয় ব্র্যান্ডের মোবাইল পাওয়া যাবে দারাজ মলে!

কেন এখনি কিনতে চাইবেন এই মিড লেভেল কিং স্মার্টফোন?

৯০ হার্জেড এর আলট্রা স্মুথ ডিসপ্লে

বাজারে উপলভ্য বেশিরভাগ স্মার্টফোনগুলির রিফ্রেশ রেট ৬০ হার্জেড হয়ে থাকে, যা দীর্ঘ সময়ের জন্য স্ক্রোল করতে গেলে বা সোশ্যাল নিউজ ফিড, সিনেমা দেখা বা গেম খেলতে গিয়ে কিছুটা ফ্যাকাশে হয়ে যায়। রিয়েলমি সি সেভেন্টিন এর ৯০ হার্জেড রিফ্রেশ রেট অবশ্যই সোশ্যাল মিডিয়া, টেক্সটিং, ভিডিও এবং চলচ্চিত্রগুলি দেখার সময় ব্যবহারকারীদের এক অসাধারণ অভিজ্ঞতা প্রদান করবে। রিয়েলমি সিক্স আই এর ৬.৫ ইঞ্চি মিনি ড্রপ ফুলস্ক্রিনে ফোনটির ৯০ শতাংশই স্ক্রিন। এই বিশাল স্ক্রিন রয়েছে আই কেয়ার মোড সুবিধা যা চোখের ওপর অতিরিক্ত চাপ ছাড়াই দীর্ঘক্ষণ ফোন ব্যবহার করতে সাহায্য করবে।

শক্তিশালী প্রসেসরে অসাধারণ পারফরম্যান্স

রিয়েলমে সি সেভেন্টিন এ রয়েছে শক্তিশালী ৬ গিগাবাইট এলপিডিডিআর ৪x রম এবং ১২৮ গিগাবাইট ইউএফএস ২.১ ইন্টারনাল স্টোরেজ। এছাড়াও ফোনটিতে রয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ প্রসেসর- একটি বিশেষ ১১ এন এম প্রসেসর যা আরও শক্তিশালী এবং দক্ষ। ফোনটির সি পি ইউ ক্রিয়ো ২৪০ স্ট্রাকচার এবং অ্যাড্রেনো ৬১০ জিপিইউ দ্বারা সজ্জিত।

দীর্ঘক্ষণের ব্যাটারি সাপোর্ট

নন-স্টপ ব্যবহার উপযোগী করতে রিয়েলমে সি সেভেন্টিন স্মার্টফোনে রয়েছে ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের মেগা ব্যাটারি যা ফোনটিকে ৩৪ দিনের স্ট্যান্ডবাই মোড প্রতিশ্রুতি দেয়। এছাড়াও এটি ১৮ ডব্লিউ ফাস্ট চার্জিং দ্বারা সজ্জিত যা এর বিশাল ব্যাটারির ৩৩% মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে চার্জ করতে পারে এবং মাত্র ৫% ব্যাটারি নিয়ে এর ইউজার প্রায় ১.২ ঘন্টা ফোনটি ব্যবহার করতে ও হোয়াটসঅ্যাপ করতে সক্ষম হবে।

১৩ মেগাপিক্সেল কোয়াড রিয়ার ক্যামেরায় ধারণ করুন চমৎকার সব মুহূর্ত

ফটো এবং ভিডিও এর জন্য, রিয়েলমি সি সেভেন্টিন মোবাইলের একটি কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে যাতে একটি এফ / ২.২ লেন্স সহ একটি ১৩ -মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, একটি আল্ট্রা-ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল এফ লেন্স সহ একটি 8-মেগাপিক্সেল সেন্সর, একটি ২-মেগাপিক্সেল এফ / ২.৪ অ্যাপারচার সহ ম্যাক্রো শ্যুটার, এবং একটি কালো এবং সাদা এফ লেন্স সহ রয়েছে একটি ২-মেগাপিক্সেল সেন্সর। সেলফির জন্য থাকছে স্ক্রিনের উপরের বাম কোণে রাখা গর্ত-পাঞ্চের মধ্যে এফ / ২.০ লেন্স সহ একটি 8-মেগাপিক্সেল সেন্সর।

realme c17 smartphone on daraz.com.bd

To enjoy special discount, download Daraz App now!

download daraz app for the best deals

css.php